বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ ৪ আষাঢ় ১৪৩১
 

নাফ নদী থেকে সরিয়ে নিয়েছে মিয়ানমারের যুদ্ধজাহাজ    জাপানে ভয়ঙ্কর ব্যাকটেরিয়ার থাবা, ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই মৃত্যু    দ্বিতীয় সর্বোচ্চ টোল আদায়ের রেকর্ড পদ্মা সেতুতে     গাজীপুরে শ্রমিক অসন্তোষ, বেতনের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ    সেন্টমার্টিন আক্রান্ত হলে ছেড়ে দেব না: কাদের    সেন্টমার্টিন নিয়ে সরকারের নীরবতা দাসসুলভ আচরণ: ফখরুল    বৃক্ষরোপণের আহ্বান জানালেন প্রধানমন্ত্রী   
ভালোবেসে ইতালির যুবক ঠাকুরগাঁওয়ে
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ২৬ জুলাই, ২০২২, ৬:৪৬ অপরাহ্ন
সর্বশেষ আপডেট: মঙ্গলবার, ২৬ জুলাই, ২০২২, ৭:১৭ অপরাহ্ন

ভালোবাসার টানে নিজ দেশ ইতালি থেকে এসে আলী সান্দ্রে চিয়ারোমিন্তে (৩৯) নামে এক যুবক বিয়ে করেছেন ঠাকুরগাঁওয়ের বালীয়াডাঙ্গীর এক তরুণীকে। গত সোমবার রাতে সনাতন ধর্মের রীতি অনুযায়ী দুজন বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন।

তরুণী রত্না রানী দাসের (১৯) বাড়ি ঠাকুরগাঁওয়ের বালীয়াডাঙ্গী উপজেলার চাড়োল ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের খোকোপাড়া গ্রামে। তার বাবা দিনমজুর মারকুস দাস।

রত্নার বাবা মারকুস দাস বলেন, আমার এক ভাই ইতালি থাকেন। তার মাধ্যমেই জামাইয়ের সঙ্গে আমার মেয়ের পরিচয় হয়। তারপর মোবাইল ফোনে তাদের কথাবার্তা হয়। জামাই গতকাল দুপুর ১টায় বাংলাদেশে পৌঁছানোর পর গতকালই আমাদের বাড়িতে আসে। ধর্মীয় সব আইনকানুন মেনে ধুমধাম করে তাদের বিয়ে দিয়েছি।

রত্না রানীর মা জানগি দাস বলেন, আমার দেবর তার পরিবার নিয়ে ইতালি থাকে। সেখান থেকে আমাদের প্রস্তাব দেয়। পরে প্রস্তাবের মাধ্যমে আমার মেয়েকে জামাই পছন্দ করে। পরে আমরা ধুমধাম করে এবং আয়োজন করে বিয়ে সম্পন্ন করেছি। আমার জামাই আমার মেয়েকে ইতালি নিয়ে যাবে। পরে আমরাও যাব।

রত্না রানী বলেন, সান্দ্রে সম্পর্কে আমার চাচা আমার মা-বাবাকে প্রস্তাব দেন। পরে তারা ইমুতে যোগাযোগ করেন। আমিও কথা বলি। চাচা আমাকে ইতালির কিছু ভাষা শিখিয়ে দিয়েছিলেন। সেগুলো দিয়ে তার সঙ্গে কথা বলি। তারপর গতকাল আমাদের বিয়ে হয়। সান্দ্রে অনেক ভালো মনের মানুষ। সে সবকিছু মানিয়ে নিতে চেষ্টা করছে। সেও আমাদের ভাষা শেখার চেষ্টা করছে।

আলী সান্দ্রে চিয়ারোমিন্তে বলেন, ইতালিতে রত্নার চাচার সঙ্গে আমি একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করি। সেখানে দেখেছি তিনি অনেক সুন্দর দাম্পত্য জীবন পরিচালনা করেন। সেখান থেকেই আমি অনুপ্রাণিত হয়ে চাচা জোসেফকে বলি বাংলাদেশে বিয়ে করার কথা। তিনি রত্নার বিষয়ে আমাকে প্রস্তাব দেন। আমারও তাকে অনেক পছন্দ হয়। গতকাল এসে এখানে আয়োজন করে বিয়ে করেছি।

তিনি বলেন, আমার স্ত্রী ও তার পরিবার অনেক ভালো। তারা অনেক আন্তরিক ও ভালো মনের মানুষ। আমি আমার স্ত্রীকে আমার দেশে নিয়ে যাব। পাসপোর্ট ও ভিসা-সংক্রান্ত সব কাজ সম্পন্ন হয়েছে। খুব তাড়াতাড়ি আমরা চলে যাব।

এদিকে আত্মীয়স্বজনের উপস্থিতিতে ধুমধাম করে বিয়ে হলো। অন্যদিকে সান্দ্রে ও রত্নাকে দেখতে মারকুসের বাড়িতে ভিড় করছেন পাড়াপ্রতিবেশীরা। বিদেশি তরুণের সঙ্গে বিয়ে হওয়ায় তারাও বেশ উচ্ছ্বসিত।

তাদের একজন জতিন চন্দ্র বলেন, এটি আমার দেখা ব্যতিক্রমী বিয়ে। ইতালির ছেলের সঙ্গে বাংলাদেশের একটি গ্রামের মেয়ের বিয়ে। পাত্র-পাত্রী দেশ-বিদেশের। এ জন্য আমরাও অনেক আনন্দ ও উল্লাস করেছি তাদের বিয়েতে। জামাই বউকে ইতালিতে নিয়ে যাবে। জামাই অনেক ভদ্র। আমরা অনেক খুশি হয়েছি। 

চাড়োল ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৪ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য আরিফুল ইসলাম বলেন, জোসেফের পারিবারিক দাম্পত্য জীবন দেখে ইতালির ছেলে বাঙালি মেয়েদের প্রতি আকৃষ্ট হয়েছে। এ জন্য বিয়ে করতে চলে এসেছে এ দেশে। গতকাল ধুমধাম করে বিয়ের আয়োজন সম্পন্ন হয়েছে।

চাড়োল ইউপি চেয়ারম্যান দিলীপ কুমার রায় বলেন, আমি নিজে বিয়েতে অংশগ্রহণ করেছিলাম। ভিসা-সংক্রান্ত কাজ শেষ করে ছেলেটি তার স্ত্রীকে ইতালি নিয়ে যাবেন। এতে মেয়ের পরিবারে সচ্ছলতা ফিরে আসবে বলে মনে করি।

বালিয়াডাঙ্গী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খায়রুল ইসলাম ডন বলেন, ইতালিয়ান নাগরিক বাংলাদেশে এসে ঠাকুরগাঁওয়ের তরুণীকে বিয়ে করেছেন। আমরা খবর পাওয়ামাত্রই তরুণীর বাড়িতে সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছি। 

-জ/আ

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো. আক্তার হোসেন রিন্টু
বার্তা ও বাণিজ্যিক বিভাগ : প্রকাশক কর্তৃক ৮২, শহীদ সাংবাদিক সেলিনা পারভীন সড়ক (৩য় তলা) ওয়্যারলেস মোড়, বড় মগবাজার, ঢাকা-১২১৭।
বার্তা বিভাগ : +8802-58316172. বাণিজ্যিক বিভাগ : +8801868-173008, E-mail: dailyjobabdihi@gmail.com
কপিরাইট © দৈনিক জবাবদিহি সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft