মঙ্গলবার ৩ অক্টোবর ২০২৩ ১৮ আশ্বিন ১৪৩০
 

যেকোনো মূল্যে বাংলাদেশে গণতন্ত্র অব্যাহত রাখতে হবে : প্রধানমন্ত্রী    ‘মীরজাফর’ ওখানে কীভাবে জায়গা পেল: শিশির    ডেঙ্গুতে আরো ১১ জনের মৃত্যু, ঢাকাতেই ৭ জন    রাজধানীতে ভূমিকম্প অনুভূত    আবারো বাড়লো এলপিজির দাম    নির্বাচনকে ঘিরে অবৈধ অস্ত্র নিয়ন্ত্রণই বড় চ্যালেঞ্জ: ডিএমপি কমিশনার     দেশে প্রথম কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পিতৃত্বকালীন ছুটি দিচ্ছে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়   
পাল্টা প্রতিক্রিয়া কানাডার
এবার ভারতীয় কূটনীতিককে কানাডা ছাড়ার নির্দেশ
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২৩, ৫:২৮ অপরাহ্ন
সর্বশেষ আপডেট: মঙ্গলবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২৩, ৫:৪১ অপরাহ্ন

আবারও কানাডার সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক অবনতির পথে রয়েছে। কানাডা জানিয়েছে, তারা এক ভারতীয় কূটনীতিককে দ্রুত দেশ ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছেন। 

শিখ নেতা হারদিপ সিং নিজ্জার হত্যার পেছনে ভারত সরকারের হাত থাকতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। এরপরেই ভারতের একজন শীর্ষ কূটনীতিককে বহিষ্কারের নির্দেশ দিয়েছে দেশটি।

তবে ওই কূটনীতিকের নাম তারা প্রকাশ করেনি। অভিযোগ, চলতি বছর জুনে ভারতের বিচ্ছিন্নতাবাদী শিখ নেতাকে খুন করা হয়েছিল। ওই কূটনীতিক হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ছিল বলে অভিযোগ রয়েছে। খবর ডয়েচে ভেলের।

কানাডার বক্তব্য, এ হত্যাকাণ্ড তাদের দেশের সার্বভৌমত্বের বিরোধী। কোনোভাবেই এ ঘটনা তারা মেনে নেবে না। সে কারণেই ওই কূটনীতিককে দ্রুত দেশ ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কানাডায় শিখ নেতা হত্যায় ভারতকে দুষলেন জাস্টিন ট্রুডো।

তিনি বলেন, ‌‘তদন্তে ওই ভারতীয় কূটনীতিকের এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়টি প্রমাণিত হয়েছে। তদন্ত এখনও চলমান রয়েছে।’

স্থানীয় প্রশাসনের উদ্ধৃতি দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছে, তদন্ত অনেকটাই এগিয়েছে। ঘটনা প্রমাণ হলে তা দুই দেশের সম্পর্কে যথেষ্ট প্রভাব ফেলবে বলেই মনে করছে কানাডা।

চলতি বছর জুনে ব্রিটিশ কলম্বিয়ায় একটি গুরুদুয়ারার সামনে খুন হন ভারতের বিচ্ছিন্নতাবাদী শিখ নেতা হরদীপ সিং নিজ্জর। ওই নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, পৃথক শিখ রাষ্ট্রের জন্য (খালিস্তান আন্দোলন) তিনি লড়াই করছিলেন ও উসকানি দিয়ে আসছিলেন। প্রাথমিকভাবে এ ঘটনার সঙ্গে কারা জড়িত সেটি স্পষ্ট হয়নি। কিন্তু যতদিন গেছে, ততই এর সঙ্গে ভারতীয় কূটনীতিকের জড়িত থাকার বিষয়টি তদন্তে প্রমাণিত।

এদিকে এক বিবৃতিতে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, জি-২০ বৈঠকে কানাডার প্রধানমন্ত্রীকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানিয়েছেন, কানাডা শিখ বিচ্ছিন্নতাবাদীদের মুক্ত ক্ষেত্র হয়ে উঠছে। ভারত বিষয়টিকে ভালো চোখে দেখছে না। শুধু তাই নয়, ভারতের দাবি, ‘কানাডার অভিযোগ ভিত্তিহীন ও অগ্রহণযোগ্য। প্রমাণ ছাড়াই অভিযোগ করা হচ্ছে।’

কানাডায় একটা বিপুল অংশের ভারতীয় বংশোদ্ভূত কানাডার নাগরিক বাস করে। এর মধ্যে বড় একটি অংশ শিখ। বিভিন্ন সময় শিখরা পৃথক শিখ রাষ্ট্রের দাবি তোলে। নিজ্জর ছিলেন বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠীর অন্যতম নেতা।

খালিস্তানি আন্দোলন নতুন কোনো আন্দোলন নয়। এর আগে পাঞ্জাবে এ আন্দোলন বড় আকার ধারণ করেছিল। ইন্দিরা গান্ধীর শাসনামলে পাঞ্জাবে অপারেশন ব্লু স্টার পরিচালিত হয়েছিল। স্বর্ণ মন্দিরের ভেতরে ঢুকে তাদেরকে হত্যা করেছিল ভারতীয় সেনাবাহিনী। পরবর্তীতে শিখ দেহরক্ষীর গুলিতেই শ্রীমতি ইন্দিরা গান্ধীর মৃত্যু হয়।

উল্লেখ্য, গত কয়েক দশকে এ আন্দোলন অনেকটাই ঝিমিয়ে পড়েছে। কিন্তু কানাডায় এখনও বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠীটির বড় একটি অংশ অবস্থান করছে বলে অভিযোগ তুলে আসছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


Also News   Subject:  আন্তর্জাতিক  







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো. আক্তার হোসেন রিন্টু
বার্তা ও বাণিজ্যিক বিভাগ : প্রকাশক কর্তৃক ৮২, শহীদ সাংবাদিক সেলিনা পারভীন সড়ক (৩য় তলা) ওয়্যারলেস মোড়, বড় মগবাজার, ঢাকা-১২১৭।
বার্তা বিভাগ : +8802-58316172. বাণিজ্যিক বিভাগ : +8801868-173008, E-mail: dailyjobabdihi@gmail.com
কপিরাইট © দৈনিক জবাবদিহি সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft