শনিবার ১৩ এপ্রিল ২০২৪ ৩০ চৈত্র ১৪৩০
 

২৫০ ছাড়িয়েছে ব্রয়লার, বাড়তি দাম শাক-সবজির    ৪৬তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার্থীদের জন্য পিএসসির নির্দেশনা    রাশিয়ার সঙ্গে সীমান্ত অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ফিনল্যান্ডের    ঈদের ফিরতি যাত্রা: ট্রেনের ১৫ এপ্রিলের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু    ভূমিকম্পে কাঁপল ভারতের হিমাচল প্রদেশ    কাবা শরিফ থেকে ৪ হাজার ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার    জলদস্যুদের হাত থেকে ২৩ পাকিস্তানিকে উদ্ধারের দাবি ভারতের   
সরবরাহ সংকটে অস্থির মুরগির বাজার
প্রকাশ: শুক্রবার, ১৭ মার্চ, ২০২৩, ২:১০ অপরাহ্ন

অস্থির মুরগির বাজারে ব্রয়লারের দাম এ সপ্তাহে না বাড়লেও সরবরাহ সংকটে পড়া দেশি ও সোনালি মুরগীর দাম ঊর্ধ্বমুখী। আর পাইকারিতে দাম বেড়ে উত্তাপ ছড়াচ্ছে ডিম। তবে রমজানের আগে বিক্রি কমে যাওয়া মুদিপণ্যের বাজারে রয়েছে কমতির খবর।

এদিকে বাজার অভিযানে এসে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর জানিয়ে গেল, জোগান স্বাভাবিক থাকার পরও দামের কারসাজি করলে নেয়া হবে কঠোর ব্যবস্থা।

শুক্রবার (১৭ মার্চ) রাজধানীর বাজার ঘুরে দেখা যায়, অস্থিরতার বৃত্তে বন্দি মুরগির বাজারে ব্রয়লারের দাম ২৬০ টাকা। এর মধ্যে ব্যবসায়ীরা জানালেন সরবরাহ সংকটে পড়েছে দেশি আর সোনালি মুরগি।

ফলে এ সপ্তাহে সোনালির দাম কেজিতে ১০ টাকা বেড়ে ৩২০-৩৮০ আর দেশিতে প্রতি পিস (৮০০-৯০০ গ্রাম) ৩০ টাকা পর্যন্ত বেড়ে ৫০০-৫৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে দামের চাপে বিক্রি কমেছে বলেও জানান বিক্রেতারা।

ডিমের বাজারেও পাওয়া গেল না দাম কমার সুখবর। জানা গেল, রোজার শুরুতেই বাড়তে পারে ডিমের দাম। এতে বিক্রি কমে যাওয়ার শঙ্কায় পড়েছেন বিক্রেতারা, ক্রেতারা ফুঁসছেন বাজার মনিটরিং না থাকায়।

রোজার বাজারে ছোলার দাম কিছুটা কমেছে। প্রতি কেজি ছোলা বিক্রি হচ্ছে ৮৫-৯৫ টাকা। তবে অন্য পণ্যের দামে গরম ভাব রয়েই গেছে। প্রতি কেজি খোলা চিনি ১১৫-১২০ টাকা, মসুর ডাল ১৩৫-১৫০ টাকা, খেসারি ডাল ৮০-৯০ টাকা, অ্যাংকরের বেসন ৭৫-৮৫ টাকা এবং বুটের বেসন বিক্রি হচ্ছে ১০০-১১০ টাকায়।

এদিকে মাসের মাঝামাঝিতে বিক্রি কমা মুদিপণ্যের দোকানদাররা জানান, বেশ খানিকটা ঠান্ডা  চাহিদা-জোগান আর দামে। সাপ্তাহিক ছুটির দিনে মাছের বাজারে দর কষাকষি থাকলেও দাম বৃদ্ধির বড় অভিযোগ নেই ক্রেতাদের।

আকারভেদে প্রতি কেজি রুই বিক্রি হচ্ছে ৩০০-৫০০ টাকায়। দেশি জলাশয়ের মাছের দাম ৮০০-১০০০ টাকা চাওয়া হচ্ছে। এ ছাড়া ইলিশ ১ হাজার ৩৫০ থেকে ২ হাজার ৫০০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। আর প্রতি কেজি গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৭৫০ টাকায়, ছাগলের মাংস ৯০০ টাকা এবং খাসির মাংস ১ হাজার ২০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

যদিও বাজার অভিযানে এসে ভোক্তাকে আশ্বস্ত করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানালেন চাহিদা মতোই পণ্যের সরবরাহ রয়েছে বাজারে। কোনো অনিয়ম বা অভিযোগ পেলে সঙ্গে সঙ্গেই নেয়া হবে ব্যবস্থা।


-জ/অ

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো. আক্তার হোসেন রিন্টু
বার্তা ও বাণিজ্যিক বিভাগ : প্রকাশক কর্তৃক ৮২, শহীদ সাংবাদিক সেলিনা পারভীন সড়ক (৩য় তলা) ওয়্যারলেস মোড়, বড় মগবাজার, ঢাকা-১২১৭।
বার্তা বিভাগ : +8802-58316172. বাণিজ্যিক বিভাগ : +8801868-173008, E-mail: dailyjobabdihi@gmail.com
কপিরাইট © দৈনিক জবাবদিহি সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft