বুধবার ২২ মে ২০২৪ ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
 

কোপা আমেরিকায় আর্জেন্টিনার শক্তিশালী দল ঘোষণা    রাইসির মৃত্যুতে বাংলাদেশে রাষ্ট্রীয় শোক বৃহস্পতিবার    দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা পরিষদ ভোট গ্রহণ শেষ    ভোজ্যতেল আমদানি করবে সরকার     বাড়তে পারে দিন ও রাতের তাপমাত্রা     রাইসিকে শেষ বিদায় জানাতে লাখো মানুষে ঢল     মাঠের কর্মসূচিতে চোখ বিএনপির মিত্রদের   
ভারত-চীন সীমান্তে ফের সংঘাতের আশঙ্কা
প্রকাশ: শনিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২৩, ৮:৫৩ অপরাহ্ন

আবারও সংঘাতের দ্বারপ্রান্তে ভারত-চীন। লাদাখ সীমান্তে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সেনা পরিকাঠামো বাড়াতে পারে চীন; এমনটাই শঙ্কা করছেন ভারত। আর এতে দুই দেশের মধ্যে সংঘর্ষের আশঙ্কা তীব্র হচ্ছে বলে মনে করছে খোদ লাদাখ পুলিশ কর্তৃপক্ষ। লাদাখ সীমান্ত পরিস্থিতি মূল্যায়ন নিয়ে অঞ্চলটির শীর্ষ পুলিশ কর্মকর্তাদের এক বার্ষিক সম্মেলনের পর এক গবেষণাপত্রে এ তথ্য উঠে এসেছে।

লাদাখ নিয়ে ভারত-চীন বিরোধ দীর্ঘদিনের। ২০২০ সালের জুনে দুই দেশের নিয়ন্ত্রণরেখার কাছে গালওয়ান উপত্যকায় সংঘর্ষ বাধে ভারতীয় ও চীনা সেনাদের মধ্যে। ওই ঘটনায় ভারতের ২৪ সেনা নিহত হন। এরপর দফায় দফায় সামরিক এবং কূটনৈতিক আলোচনায়ও কোনো সুরাহা হয়নি। উল্টো এশিয়ার দুই প্রভাবশালী দেশের মধ্যে উত্তেজনা বেড়েই চলেছে।  

গেল ডিসেম্বরে হিমালয়ের পূর্বাঞ্চলের অরুণাচল প্রদেশের সীমান্তে দুই দেশের সৈন্যদের মাঝে নতুন করে সংঘর্ষের পর উত্তেজনার পারদ তুঙ্গে ওঠে।

বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বলছে, লাদাখ সীমান্তের কাছে সেনাসদস্য বৃদ্ধি করছে চীন, এমন খবর পেয়ে দুই দেশের মধ্যে সংঘর্ষের আশঙ্কা প্রকাশ করেছে ভারতীয় পুলিশ।  

লাদাখ সীমান্ত পরিস্থিতি মূল্যায়ন নিয়ে অঞ্চলটির শীর্ষ পুলিশ কর্মকর্তাদের এক বার্ষিক সম্মেলনের পর গবেষণাপত্রে তথ্য উঠে এসেছে, ২০২০ সালের তুলনায় এবার আরও বেশি প্রস্তুতি নিচ্ছে চীনের সেনারা। সীমান্তে সেনা পরিকাঠামো উন্নত করার দিকে জোর দিচ্ছে দেশটি। অর্থনৈতিক স্বার্থ হাসিলের জন্য পিপলস লিবারেশন আর্মি (পিএলএ) সামরিক অবকাঠামো নির্মাণ অব্যাহত রাখবে।  

বিতর্কিত লাদাখ সীমান্ত এলাকায় বেইজিং সামরিক স্থাপনা গড়ে তোলায় সেখানে ভারত ও চীনের সামরিক বাহিনীর সদস্যদের মাঝে আরও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

তবে পুলিশ বিভাগ সংঘর্ষের আশঙ্কার কথা জানালেও, এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করেনি ভারতীয় সেনাবাহিনী। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও এই প্রতিবেদন নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি।


-জ/অ

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো. আক্তার হোসেন রিন্টু
বার্তা ও বাণিজ্যিক বিভাগ : প্রকাশক কর্তৃক ৮২, শহীদ সাংবাদিক সেলিনা পারভীন সড়ক (৩য় তলা) ওয়্যারলেস মোড়, বড় মগবাজার, ঢাকা-১২১৭।
বার্তা বিভাগ : +8802-58316172. বাণিজ্যিক বিভাগ : +8801868-173008, E-mail: dailyjobabdihi@gmail.com
কপিরাইট © দৈনিক জবাবদিহি সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft