শনিবার ১৩ আগস্ট ২০২২ ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯
 

বঙ্গবন্ধু হত্যার যড়যন্ত্রকারীদের খুঁজতে এ বছরই কমিশন গঠন: আইনমন্ত্রী    সালমান রুশদির হামলাকারীর পরিচয় প্রকাশ    আগামিকাল ঢাকায় আসছেন জাতিসংঘ মানবাধিকার প্রধান     ডিমের হাফ সেঞ্চুরি পার    সালমান রুশদি ভেন্টিলেটরে    ট্রাম্পের বাসভবন থেকে ১১ সেট গোপন নথি উদ্ধার    বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ১৯৪৮ জন, শনাক্ত প্রায় সাড়ে ৭ লাখ    
মহাকাশেও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে থাকতে নারাজ রাশিয়া
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ২৬ জুলাই, ২০২২, ১০:২৬ অপরাহ্ন
সর্বশেষ আপডেট: মঙ্গলবার, ২৬ জুলাই, ২০২২, ১০:৫৫ অপরাহ্ন

ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরুর পর থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রদের সঙ্গে বাড়তে থাকা তিক্ততার জেরে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। 

রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের কার্যালয় ক্রেমলিন থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, স্থানীয় সময় আজ মঙ্গলবার পুতিনের সঙ্গে এক বৈঠকে আগামী ২০২৪ সালের পর আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন থেকে রাশিয়ার সরে আসার প্রস্তাব দেন রুশ মহাকাশ গবেষণা সংস্থা রসকসমসের প্রধান ইউরি বরিসভ।

ক্রেমলিন সূত্রের বরাত দিয়ে পুতিন ও বরিসভের মঙ্গলবারের বৈঠকের কিছু আলাপচারিতা প্রকাশ করা হয়েছে বার্তাসংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে। সেখানে বলা হয়েছে, চলতি জুলাই মাসের মাঝামাঝি রসকসমসের শীর্ষ নির্বাহীর পদে আসীন হওয়া বরিসভ মঙ্গলবারের বৈঠকে পুতিনকে বলেন, ‘অবশ্যই (মহাকাশ স্টেশনের) অন্যান্য অংশীদারদের প্রতি আমাদের কিছু বাধ্যবাধকতা রয়েছে এবং সেসব আমাদের পূরণ করতে হবে। কিন্তু ২০২৪ সালের পর আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন ছাড়তে হবে আমাদের। এ ব্যাপারে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছি।’

যদি মহাকাশ স্টেশন ছাড়ার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়, সেক্ষেত্রে তা বাস্তবায়নে কেন আড়াই বছর দেরি করা হবে— পুতিনের এই প্রশ্নের উত্তরে রসকসমসের প্রধান বলেন, ‘এই সময়সীমার মধ্যে আমরা মহাকাশে নিজেদের অরবিটাল স্টেশন তৈরির কাজ শুরু করব। আমার মতে, সামনের দিনগুলোতে মহাকাশ গবেষণা ও এবিষয়ক বিভিন্ন প্রকল্পকে আমাদের সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেওয়া উচিত।’ ইউরি বরিসভের এই প্রস্তাবে সায় দিয়ে পুতিন বলেন, ‘বেশ, তবে তাই হোক।’

১৯৯৮ সালে পৃথিবীর নিম্ন কক্ষপথে স্থাপন করা হয়েছিল আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন। এটি মূলত যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, জাপান, কানাডা ও ইউরোপের ১১টি দেশের যৌথ প্রকল্প। মহাকাশ স্টেশনের যে অংশটির দায়িত্বে রাশিয়া রয়েছে, সেটি স্টেশনটির পৃথিবীর কক্ষপথে থাকার ব্যাপারটি দেখভাল করে। যদি হঠাৎ রাশিয়া তার কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়, সেক্ষেত্রে ৫০০ টন ওজনের এই স্টেশনটির ভূপৃষ্ঠে আছড়ে পড়ার সমূহ সম্ভাবনা আছে।

১৯৯১ সালে সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের মধ্যে দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে রাশিয়ার প্রায় ৪ দশকের শীতল যুদ্ধের অবসান ঘটে। তার পর থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রদের সঙ্গে অল্প যে কয়েকটি যৌথ প্রকল্পে অংশ নিয়েছিল রাশিয়া, সেসবের মধ্যে প্রধান ছিল এই মহাকাশ স্টেশন। তবে চলতি বছর ফেব্রুয়ারির শুরুতে ইউক্রেনে রুশ বাহিনী বিশেষ সামরিক অভিযান শুরুর জেরে রাশিয়ার ওপর যুক্তরাষ্ট্রের একের পর এক নিষেধাজ্ঞা জারির ফলে গত ১২ মার্চ সর্বপ্রথম মহাকাশ স্টেশন প্রকল্প থেকে বেরিয়ে যাওয়ার হুমকি দিয়েছিল রাশিয়া। মঙ্গলবারের বৈঠকেও সেই সতর্কবার্তারই প্রতিধ্বনি করলেন ইউরি বরিসভ।

-জ/আ

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
সম্পাদক ও প্রকাশক : আক্তার হোসেন রিন্টু
বার্তা ও বাণিজ্যিক বিভাগ : প্রকাশক কর্তৃক ৮২, শহীদ সাংবাদিক সেলিনা পারভীন সড়ক (৩য় তলা) ওয়্যারলেস মোড়, বড় মগবাজার, ঢাকা-১২১৭
বার্তা বিভাগ : +8802-58316172, বাণিজ্যিক বিভাগ : +8802-58316175,+8801711443328, E-mail: [email protected], [email protected]
কপিরাইট © দৈনিক জবাবদিহি সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত | Developed By: i2soft