রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ১১:৫৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিবগঞ্জে ৩০ শতাংশ সিলেবাসে পরীক্ষার দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন মোংলা বন্দরে তিন নম্বর সংকেত বহাল ‘নিষিদ্ধ’ সিনেমা দেখায় এক শিক্ষার্থী ১৪ বছরের কারাদণ্ড ওমিক্রন মোকাবিলায় দেশের সীমান্ত বন্ধের কোনো পরিকল্পনা নেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা রোগীর মৃত্যুর করনে হাসপাতাল পরিচালকের ৩বছর কারাদণ্ড ডামুড্যায় জাতীয় বীর আব্দুর রাজ্জাক ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত ‘ওমিক্রন’ বাংলাদেশের দরজায় কড়া নাড়ছে আহসানগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নির্বাচনী বর্ধিত সভা টঙ্গীতে গ্রাহক ও ঠিকাদার ঐক্য পরিষদের মানববন্ধন ফেনীর ১০জন শ্রেষ্ঠ স্বেচ্ছাসেবক পুরস্কৃত হলেন প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানকে হত্যাচেষ্টা ব্যর্থ দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ভোগান্তি যেন নিত্যদিনের সঙ্গী চোরের নিকট থেকে উদ্ধার হওয়া গরু লালন-পালন করছে পুলিশ বাগেরহাটে ক্লিনিক মালিকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ : উপকূলে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি অব্যাহত দেশে করোনায় মৃতেৃর সংখ্যা ২৮ হাজার ছাড়াল তিন সন্তান জন্ম দিয়ে বিপদে পড়া ববিতার পাশে ইউএনও আইন মন্ত্রীর প্রয়াত পিতা-মাতার স্মরণে দোয়া মাহফিল ডিমলায় প্রতিবন্ধী দিবসে আর্থিক সহায়তা প্রদান ডেঙ্গুতে আরও ৬৮ জন হাসপাতালে ভর্তি

হিলিতে মসলার দাম কমেছে

হিলি (দিনাজপুর) প্রতিনিধি
প্রকাশের সময় : রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ১১:৫৯ অপরাহ্ন
হিলিতে মসলার দাম কমেছে

আর মাত্র কয়েক দিন পরে মুসলিম সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আজহা বা কোরবানির ঈদ। আর কোরবানি ঈদে মানেই সব পরিবারে মসলার একান্ত প্রয়োজন। তাই প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ঈদ উপলক্ষে চাহিদা বাড়লেও দিনাজপুরের হিলি বাজারে মসলার দাম কমেছে।
গত রোজার ঈদে মসলার দাম বাড়লেও এবার কোরবানির ঈদে তা অনেকটাই কমের দিকে এবং খুচরা বিক্রি কম হলেও বেড়েছে মসলার পাইকারি বিক্রি। আর এতে স্বস্তিতে নিঃশ্বাস ফেলছে সাধারণ ক্রেতারা।

বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) হিলির সাপ্তাহিক হাট বার ও আজ শুক্রবার বন্ধের দিনে হিলি মসলা বাজার ঘুরে এমন চিত্রই দেখা গেছে।

জানা গেছে, গত রমজান ঈদে অর্থাৎ ঈদুল ফিতরে মসলার বাজারে সাদা এলাচের দাম ছিলো ৩০০০ থেকে ৩৫০০ টাকা কেজি, তা বর্তমান বাজারে বিক্রি হচ্ছে ১৮০০ থেকে ২৪০০ টাকা কেজি দরে। ভিয়েতনামার দারচিনি বিক্রি হচ্ছে ৪০০ টাকা আর চায়না দারচিনি ৩৫০ টাকা কেজি দরে। কালো এলাচ ১২০০ টাকা কেজি। লং ১০২০ টাকা কেজি ও গোলমরিচ ৬০০ থেকে ৮০০ টাকা কেজি দরে। জিরা প্রতি প্যাকেট(১কজি) মানভেদে ২৮০ টাকা থেকে ৩০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়াও আদা বিক্রি হচ্ছে মানভেদে প্রতি কেজি ৭০-৮০ টাকা। রসুন প্রতি কেজি ৫০-৬০ টাকা ও ভারত থেকে আমদানিকৃত পেঁয়াজ মানভেদে প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩০-৩২ টাকা এবং দেশি পেঁয়াজ ৪০-৪৫ টাকায়।

চলমান কঠোর লকডাউনে বাজারে ক্রেতার উপস্থিতি যেমন কম ছিলো তেমনি সরকার ঘোষিত দোকান ছাড়া অন্য দোকানপাট বন্ধ ছিলো। বৃহস্পতিবার থেকে লকডাউন শিথিলের পর শুরু হয়েছে বাজারে বিভিন্ন পণ্য সামগ্রীর বেচাকেনা। তবে ক্রেতাদের সমাগম অনেকটাই কম। পাশাপাশি মসলা বাজারে খুচরা ক্রেতার উপস্থিতিও ছিলো কম। কিন্তু দুর-দুরান্ত থেকে মসলা নিতে আসছেন পাইকাররা।

হিলি বাজারে মসলা নিতে আসা নাসরিন বেগম বলেন, লকডাউন এর কারনে বাসা থেকে বাহির হয়নি, বাজারেও আসেনি। লকডাউন শিথিল কারায় বাজারে আসলাম। সামনে ঈদ, মসলার দরকার। তবে মনে করছিলাম, লকডাউনের কারনে হয়তো দাম বেশি হবে। তা নয় দেখলাম গত ঈদের চেয়ে এবারের ঈদে মসলার দাম অনেকটাই কম। এতে আমাদের মতো সাধারণ মানুষ স্বস্তিতে নিঃশ্বাস ফেলছি।

হিলি বাজারে মসলা পাইকারি নিতে আসা ফয়সাল হক বলেন, জয়পুরহাটের কালাই থেকে মসলা পাইকারি কিনতে আসছি। গত রমজানের চেয়ে বর্তমান সাদা ফলের (এলাচি) দাম অনেক কমে গেছে। আর অন্যান্য মসলার দাম স্বাভাবিক রয়েছে।

হিলি বাজারের মসলার ব্যবসায়ী আওয়াল হোসেন বলেন, কোরবানি ঈদের বেচাকেনা এখনও তেমন শুরু হয়নি। ঈদের আর কয়েক দিন বাকি আছে, হয়তো ঈদের আগে পুরাদমে বেচাকেনা শুরু হবে। তার উপর আবার কঠোর লকডাউন ছিলো। সব মিলে খুচরা ক্রেতার উপস্থিতিও কম। তবে বিভিন্ন স্থান থেকে ব্যবসায়ীরা পাইকারি মসলা কিনতে আসছেন।

মসলা বাজারের আর এক ব্যবসায়ী জামান মিয়া বলেন, গত ঈদের চেয়ে এই ঈদে মসলার দাম অনেকটাই কম আছে। লকডাউন শিথিলের আজ প্রথম দিন, মনে হচ্ছে তাই আজ বেচাবিক্রি অল্প হচ্ছে। লকডাউন শেষ হলো, আশা করছি ঈদের কয়েক দিন আগে ক্রেতার উপস্থিতি যেমন বাড়বে তেমনি বেচাবিক্রিও বাড়বে বলে আমরা আশাবাদী।


অন্যান্য সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: