শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৪:২৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
অসুস্থ গাফফার চৌধুরীকে ফোন করে খোঁজ-খবর নিলেন রাষ্ট্রপতি স্কটল্যান্ড হারলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ কক্ষপথে স্যাটেলাইট স্থাপনে ব্যর্থ হয়েছে দ. কোরিয়া স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী বন্ধ হচ্ছে না বৈধ-অবৈধ মোবাইল ফোন মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিসহ ২১৩ অভিবাসী আটক হিন্দুদের ওপর হামলা দেশের চেতনার বেদীমূলে হামলা : তথ্যমন্ত্রী জানুয়ারিতে বাড়তে পারে ক্লাসের সংখ্যা: শিক্ষামন্ত্রী ব্যাট-বলের ভারসাম্যে খুশী মাহমুদুল্লাহ ধামইরহাটে উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনে পুনরায় দেলদার হোসেন সভাপতি ও সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বিশাল জয়ে বিশ্বকাপের মূল পর্বে টাইগাররা ‘বিএনপি নেতারা রাজনীতি নয়, অফিসিয়াল দায়িত্ব পালন করছেন’ গোয়ালন্দ উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি গঠন মালিঙ্গাকে ছাড়িয়ে আফ্রিদিকে ধরে ফেললেন সাকিব রাডার কিনতে ফ্রান্সের সঙ্গে চুক্তি সই করোনায় ২৪ ঘণ্টায় বেড়েছে মৃত্যু, কমেছে শনাক্ত ঠাকুরগাঁওয়ে বাল্যবিবাহের অপরাধে ইউপি চেয়ারম্যান ও কাজি সহ আটক ০৯ কখনও বলিনি বিশ্বকাপ জিতে বিয়ে করব: রশিদ খান নারী ও শিশু উন্নয়ন বিষয়ক সাংবাদিক প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপন ধামইরহাটে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ মন্ডলকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন

লন্ডনে বিক্রি হচ্ছে রবীন্দ্রনাথের বাড়ি!

রিপোর্টারের নাম
প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৪:২৯ পূর্বাহ্ন
লন্ডনে বিক্রি হচ্ছে রবীন্দ্রনাথের বাড়ি!

যে বাড়িতে বসেই নোবেলজয়ী সাহিত্য ‘গীতাঞ্জলি’র ইংরেজি অনুবাদ করেছিলেন বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, যুক্তরাজ্যের লন্ডনের সে বাড়ি বিক্রি হয়ে যাচ্ছে। উত্তর লন্ডনের হ্যাম্পস্টেড হিথে অবস্থিত এই বাড়িটি বিক্রির দায়িত্বে রয়েছে ইউরোপিয়ান কোম্পানি গোল্ডস্মিথ অ্যান্ড হাওল্যান্ড।

রবী ঠাকুরের স্মৃতি বিজড়িত তিন বেডরুমের বাড়িটি, এর বর্তমান মালিক বিক্রির সিদ্ধান্ত নেয়ায় এটির দাম উঠেছে ২৭ লাখ পাউন্ড অর্থাৎ বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৩১ কোটি ৫৬ লাখ টাকা।

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, ১৯১২ সালে লন্ডন সফরের সময় টানা কয়েক মাস এই বাড়িতেই ছিলেন কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। এখানেই সেসময় বিশ্বকবি ১০৩টি কাব্যের অনুবাদ করে নোবেল কমিটিকে পাঠিয়েছিলেন।

এরপরের বছরই অর্থাৎ ১৯১৩ সালেই গীতাঞ্জলির জন্য নোবেল পুরস্কার পান রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। তারপরও ১৯৩১ সাল পর্যন্ত এই বাড়িতেই অনেকটা সময়ই কাটিয়েছিলেন তিনি।

২০১৫ সালে লন্ডনে গিয়ে বাড়িটি দেখে সরকারিভাবে তা কিনে নেয়ার জন্য ভারত সরকারকে চিঠি লিখেছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু হেরিটেজ সম্পত্তি হওয়ায় সেসময় তা কেনা সম্ভব হয়নি। বর্তমানে সম্পত্তিটি ব্যক্তিগত হাতে চলে যাওয়ায় বিক্রির করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বর্তমান মালিক।

২০১৫ ও ২০১৭ সালে দু’বার বাড়িটি কিনে নিয়ে যথাযথভাবে সংরক্ষণের জন্য মমতা অনুরোধ জানালেও ভারত সরকারের পক্ষ থেকে কোনও সাড়া দেয়া হয়নি। মমতা সেসময় বাড়িটিকে রবীন্দ্রনাথের স্মারক সংগ্রহশালা হিসেবে রূপান্তরের পরামর্শ দিয়েছিলেন।


অন্যান্য সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: