শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১১:৩০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ফরিদপুরের সালথায় ইমাম বাড়িতে ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা একনজরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ১৬ দলের খেলোয়াড় তালিকা অবশেষে নগরীতে নামলো স্বস্তির বৃষ্টি সৌদি জোটের হামলা: ইয়েমেনে নিহত ১৬০ ডেঙ্গুতে চলতি বছর আক্রান্ত ২১ হাজার ২শ ছাড়াল প্রতিদিন টিকা পাবে ৪০ হাজার শিশু ডেঙ্গু আক্রান্ত ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মার্কিন যুদ্ধজাহাজকে রাশিয়ার ধাওয়া টেকসই স্যানিটেশন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সমন্বিত প্রয়াসের আহ্বান ‘সরকার সবার জন্য নিরাপদ স্যানিটেশন নিশ্চিত করতে বদ্ধপরিকর’ ওমরাহ যাত্রীদের জন্য নতুন নির্দেশনা সাম্প্রদায়িক সংঘাতের চেষ্টায় আ.লীগের এজেন্টরা জড়িত: ফখরুল দ্রব্যমূল্য থেকে মানুষের চোখ সরাতেই কুমিল্লার ঘটনা: মান্না এই সরকারের অধীনে আর কোনো নির্বাচন নয়: সাকি প্রচণ্ড তাপে পুড়ছে দেশের ১৮ অঞ্চল সকালে দলের সঙ্গে যোগ দিলেন সাকিব রুহিয়া থানা বিএনপির মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত গোবিন্দগঞ্জে শহীদ মিনারের ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন গাইবান্ধায় বিশ্ব খাদ্য দিবস পালিত অস্ত্রসহ একজনকে আটক করেছে র‌্যাব-৫

রবের্তো-ডিপাইয়ের গোলে শেষ হাসি বার্সেলোনার

রিপোর্টারের নাম
প্রকাশের সময় : শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১১:৩০ অপরাহ্ন
রবের্তো-ডিপাইয়ের গোলে শেষ হাসি বার্সেলোনার

সার্জিও রবের্তো ও মেমফিস ডিপাইয়ের গোলে শেষ হাসি হাসল বার্সেলোনা। সফরকারী গেতাফেকে ২-১ গোলে হারিয়েছে কাতালান ক্লাবটি। মাঠে ম্যাচের শুরুতে এগিয়ে যাওয়া বার্সেলোনাকে দ্বিতীয়ার্ধে কঠিন চ্যালেঞ্জ জানায় গেতাফে। ছন্দ হারানো বর্সেলোনার ওপর চাপ বাড়ালেও তাদের রুখতে পারেনি সফরকারীরা।

রোববার (২৯ আগষ্ট) স্থানীয় সময় বিকেলে ক্যাম্প নূয়ে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয় লা লিগার ম্যাচটি।

রিয়াল সোসিয়েদাদকে ৪-২ গোলে হারিয়ে আসর শুরুর পর গত সপ্তাহে আথলেতিক বিলবাওয়ের মাঠে ১-১ ড্র করে বার্সেলোনা। ঘরের মাঠে ফিরে আবারও জয়ের দেখা পেল তারা।

পুরো ম্যাচে বল দখলে এগিয়ে থাকলেও আক্রমণভাগে ভুগতে দেখা গেছে বার্সেলোনাকে। গোলের উদ্দেশে তারা মাত্র সাতটি শট নিতে পারে তাতে লক্ষ্যে মাত্র তিনটি। ২০০৩-০৪ মৌসুমের পর থেকে লা লিগায় ঘরের মাঠে যা তাদের যৌথভাবে সর্বনিম্ন। সাবেক কোচ এরনেস্তো ভালভেরদের সময়ে ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে এইবারের বিপক্ষেও সমান সাতটি শট নিয়েছিল কাতালান ক্লাবটি।

মাত্র ৩৩ শতাংশ সময় বল দখলে রাখা গেতাফেরও আটটির মধ্যে লক্ষ্যে ছিল তিনটি শট।

ম্যাচ শুরুতেই গোল উদযাপনে মেতে ওঠে বার্সেলোনা। বাঁ দিক থেকে ডি-বক্সে নিচু বল বাড়ান জর্দি আলবা। চেষ্টা করেও পা লাগাতে পারেননি মার্টিন ব্রাথওয়েট। তার পেছনে গোলমুখে ছুটে যাওয়া রবের্তো সঙ্গে লেগে থাকা একজনকে ফাঁকি দিয়ে টোকায় বল পাঠান জালে।

মাত্র ৯৬ সেকেন্ডে আদায় করে নেয় গোলটি। যা লা লিগায় গত ছয় বছরে বার্সেলোনার হোম ম্যাচে সবচেয়ে দ্রুততম গোল। এর আগে ২০১৫ সালের ১৮ এপ্রিল ভালেন্সিয়ার বিপক্ষে ২-০ ব্যবধানে জয়ের ম্যাচে ৫৪ সেকেন্ডে গোল করেছিলেন লুইস সুয়ারেস।

এগিয়ে থাকার আনন্দ অবশ্য দীর্ঘস্থায়ী হয়নি বার্সেলোনার। ১৯তম মিনিটে দারুণ এক গোলে সমতা টানে গেতাফে। কার্লোস আলেনার সঙ্গে বল দেওয়া-নেওয়ার ফাঁকে ডি-বক্সে ঢুকেই নিচু শটে ঠিকানা খুঁজে নেন সান্দ্রো রামিরেস। প্রথম দুই ম্যাচে হারা দলটির আসরে এটাই প্রথম গোল।

৩০তম মিনিটে মেমফিসের নৈপুণ্যে আবারও এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। ফ্রেংকি ডি ইয়ংয়ের পাস পেয়ে ডি-বক্সে ঢুকে পায়ের কারিকুরিতে প্রতিপক্ষকে ফাঁকি দিয়ে লক্ষ্যভেদ করেন ডাচ ফরোয়ার্ড। গত সপ্তাহে আথলেতিক বিলবাওয়ের বিপক্ষে তার শেষ দিকের গোলেই ১-১ ড্র করেছিল বার্সেলোনা।

চোট কাটিয়ে তিন মাসের বেশি সময় পর মাঠে ফেরা মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেনকে নিয়ে আবারও শঙ্কা জেগেছিল। ৪০তম মিনিটে প্রতিপক্ষের পায়ে মাথায় আঘাত পেয়ে মাঠে কিছুক্ষণ স্থির পড়ে ছিলেন তিনি। তবে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে আবারও পোস্টে দাঁড়ান তিনি।

৬০তম মিনিটে আবারও সমতায় ফেরার সুযোগ ছিল গেতাফের। তবে নিকোলো মাকসিমোভিসের জোরালো শট ঝাঁপিয়ে ঠেকান টের স্টেগেন।

শেষ পাঁচ মিনিটে একচেটিয়া বল দখলে রেখে গোল শোধে মরিয়া হয়ে ওঠে গেতাফে, যদিও আর কোনো উল্লেখযোগ্য সুযোগ তৈরি করতে পারেনি তারা। টানা তৃতীয় হারের তেতো স্বাদ নিয়ে ফিরল দলটি।

তিন ম্যাচে দুই জয় ও এক ড্রয়ে ৭ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে উঠল বার্সেলোনা। যথাক্রমে প্রথম তিনটি স্থানে থাকা রিয়াল মাদ্রিদ, সেভিয়া ও ভালেন্সিয়ার পয়েন্টও সমান ৭।


অন্যান্য সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: