রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৪১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
খাদে পড়ল বাস ৩০ যাত্রী নিয়ে সরকার খালেদা জিয়াকে ভয় পায় : মির্জা ফখরুল দেশে করোনায় শনাক্ত নামল ছয় শতাংশের নিচে সামঞ্জস্যপূর্ণ সাজার চর্চা নিশ্চিতে নীতিমালা প্রণয়নে হাইকোর্টের রুল নিজ চার সন্তানকে বিষ খাইয়ে, আগুন পুড়ে আত্মহত্যাচেষ্টা মায়ের! মামলায় ‘পলাতক’, অথচ স্কুলের বেতন তুলছেন শিক্ষক রাণীশংকৈলে বীরঙ্গনা ঐক্য সংঘের সমাবেশ ইঁদুর মারার বিষকে চকলেট ভেবে খেয়ে শিশুর প্রাণ গেল বিয়ে বাড়িতে ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষে আহত ২০ কালকিনিতে প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে বেঁড়া দিয়ে চাষাবাদ লোকালয়ে আসা হরিণ বনে ফেরত বাংলাদেশ চাইলে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় সহযোগিতা করবে জাতিসংঘ আগামীকাল দেবীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন, ঝুঁকিতে ৬ কেন্দ্র আত্রাইয়ে আশ্রয়ন প্রকল্পের নির্মিত হলো দৃষ্টিনন্দন শিশুপার্ক ভোলায় গ্রাহকদের হাজার কোটি টাকা নিয়ে উধাও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের স্বপ্ন দেখে লাভ নেই: তথ্য প্রতিমন্ত্রী অবশেষে তামিম মাঠে ফিরে এলেন ইভ্যালি নিয়ে যা বললেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ম্যাচ জিতলেই আড়াই লাখ টাকা পুরস্কার ৫৯টি আইপিটিভি বন্ধ করে দিলো বিটিআরসি

যে দ্বীপে কৌশলে হত্যা করা হয়েছিলো সব বাসিন্দাকে

রিপোর্টারের নাম
প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৪১ অপরাহ্ন
যে দ্বীপে কৌশলে হত্যা করা হয়েছিলো সব বাসিন্দাকে

ভারতের মহারাষ্ট্রের রায়গড় জেলার শহর মুরুদ। মুরুদের সমুদ্রসৈকত থেকে কিছু দূরে আরবসাগরের মাঝে রয়েছে এই দ্বীপ। দ্বীপটির নাম জাঞ্জিরা। অনেকে মুরুদ-জাঞ্জিরা নামেও চেনে একে। জাঞ্জিরা ভারতীয় শব্দ নয়। আরবি শব্দ জাজিরা থেকে এর উৎপত্তি। জাজিরার অর্থ দ্বীপ।

অসম্ভব সুন্দর এই দ্বীপের সৌন্দর্যের পিছনে লুকিয়ে রয়েছে কালো ইতিহাস। দ্বীপটির দখল নেওয়ার জন্য কৌশলে হত্যা করা হয়েছিলো বহু মানুষকে।

আহমদনগর সুলতানের নৌবাহিনীর প্রধান ছিলেন রাজা রাম রাও পাতিল। আদিবাসী কোলিদের কাছে আবার রাম রাওই ছিলেন রাজা। রাজস্থান, হিমাচল প্রদেশ, গুজরাত, মহারাষ্ট্র, উত্তরপ্রদেশ, হরিয়ানা এবং ওড়িশায় কিছু আদি জনজাতির সন্ধান মেলে আজও। কোলি তাঁদেরই অন্যতম।

ষোড়শ শতকে রাজা রাম রাও তাঁর জনগোষ্ঠীর সুরক্ষার কথা ভেবে এই দ্বীপ গড়ে তুলেছিলেন। জলদস্যুদের হাত থেকে বাঁচতে অনেকটা উঁচু করা হয়েছিলো দ্বীপটিকে। এর ফলে জলদস্যুদের হাত থেকে রেহাই মিলেছিলো কোলিদের।

এই দ্বীপ গড়ে তোলার জন্য রাম রাওকে আহমদনগরের সুলতানের অনুমতি নিতে হয়েছিলো। কিন্তু দ্বীপ তৈরির পরই সুলতানকে অমান্য করতে শুরু করেছিলেন রাম রাও। কোলিদের এই দ্বীপে নিজেকে রাজা ঘোষণা করেছিলেন তিনি।

বিষয়টি আহমদনগরের সুলতানের একেবারেই পছন্দ হয়নি। জাঞ্জিরা দখলের পরিকল্পনা করেন তিনি। নিজের এক বিশ্বস্ত সেনাপতি পিরম খানকে জাঞ্জিরায় পাঠিয়ে দেন। কিন্তু দ্বীপটি অনেকটাই উঁচু হওয়ায় সরাসরি সেনা নিয়ে সেখানে হামলা করা সম্ভব হচ্ছিলো না পিরমের। তিনি তখন ছলনার আশ্রয় নেন। নিজেকে এক জন ক্লান্ত বণিকের পরিচয় দিয়ে জাঞ্জিরায় এক রাত কাটানোর অনুরোধ জানান রাজা রাম রাওয়ের কাছে। তাতে রাজিও হয়ে যান রাজা রাম রাও।

তাঁকে এবং তাঁর সহচরদের থাকতে দেওয়ার খুশিতে দ্বীপের বাসিন্দাদের মনোরঞ্জনের জন্য রাতে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন পিরম। দ্বীপের সমস্ত বাসিন্দার জন্য নানা রকমের সুস্বাদু পদ এবং পানীয়ের ব্যবস্থা করেছিলেন তিনি।

এলাহি ছিলো সেই ব্যবস্থাপনা। দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন রাজা রাম রাও। দ্বীপের সকলেই যখন আনন্দে মেতে ছিলেন, ঠিক সেই সময়ই তাঁদের খাবারে বিষ মিশিয়ে দেন পিরম। এরপর তাঁর লুকিয়ে থাকা সেনাবাহিনী হামলা করে জাঞ্জিরা দখল করে নেয়।

সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৪০ ফুট উঁচু প্রাচীর ভেদ করে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্নভাবে এই দ্বীপ দখলের উদ্দেশ্যে হামলা করেছে পর্তুগিজ-ব্রিটিশরা। কিন্তু বার বার চেষ্টা করেও ফিরে যেতে হয়েছে তাদের। দ্বীপ থেকে সমুদ্রের দিকে আজও তাক করা রয়েছে একাধিক কামান।

আজ এই দ্বীপ পর্যটকদের অন্যতম পছন্দের গন্তব্য হয়ে উঠেছে। মুম্বাই থেকে ১৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণে রয়েছে দ্বীপটি। রাজাপুরি জেটি থেকে নৌকায় পৌঁছনো যায় এখানে। ৪০ ফুট উঁচু পাঁচিল ঘেরা দ্বীপে প্রবেশের একটিই পথ রয়েছে। নৌকা সেই পর্যন্তই পৌঁছে দেয় পর্যটকদের।

চার দিকে সমুদ্রের নোনা জলে ঘেরা থাকলেও দ্বীপে দু’টি ৬০ ফুট গভীর স্বাদু জলের হ্রদ রয়েছে। ফলে বাসিন্দাদের পানীয় জলের সঙ্কটে ভুগতে হতো না।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্যান্য সংবাদ