মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০২:৪৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
অবশেষে এসপি’র হস্তক্ষেপে থানায় মামলা! যশোরে চোরাই ইজিবাইকসহ আটক ৪ স্বাধীনতাবিরোধী চক্রই দেশের সাম্প্রদায়িক হামলার জন্য দায়ী: ইনু মানিকগঞ্জে জাতীয় স্যানিটেশন মাস ও বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস উদযাপন চকরিয়ায় পরোয়ানাভুক্ত আসামী গ্রেফতার ডিমলায় নিখোঁজের পাঁচদিন পর তিস্তা নদী থেকে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার সাম্প্রদায়িক হামলা চালিয়ে রাজনৈতিক ফায়দার চেষ্টা বিএনপি’রঃ নানক বাংলাদেশকে ৫০০ মিলিয়ন ইয়েন অনুদান দিচ্ছে জাপান এ মাসে প্রবাসী আয় ১০০ কোটি ডলার ছাড়ালো জয় বাংলা ইয়ুথ এ্যাওয়ার্ডের আবেদনের সময় বাড়লো ভোলাহাটে ভেজাল আইসক্রীম কারখানায় র‌্যাবের অভিযান ৫৯ বিজিবি’র শিয়ালমারা সীমান্তে অভিযান ॥ ফেন্সিডিলসহ আটক ১ ২৪ ঘন্টায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে নতুন ১৯০ জন রোগী ভর্তি অপারেশন শেষে আইসিইউতে খালেদা জিয়া উমরাহ পালনে আর ১৪ দিনের অপেক্ষা নয় ভারতের কেরালা রাজ্যে বন্যায় প্রাণহানিতে মোমেনের শোক বহিস্কৃত নেতাকে মনোনয়ন দেয়ার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন বিদ্যুৎ সম্পর্কিত সব মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির সুপারিশ রৌমারীতে সার সংকটে কৃষক বিপাকে মেলান্দহে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত-১, আহত ২

বঙ্গবন্ধুর অর্থনৈতিক ভাবনার পুরোটা জুড়েই ছিলো সাধারণ মানুষের মুক্তি

রিপোর্টারের নাম
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০২:৪৯ পূর্বাহ্ন
বঙ্গবন্ধুর অর্থনৈতিক ভাবনার পুরোটা জুড়েই ছিলো সাধারণ মানুষের মুক্তি
বঙ্গবন্ধুর অর্থনৈতিক ভাবনা

বঙ্গবন্ধুর অর্থনৈতিক ভাবনার পুরোটা জুড়েই ছিলো সাধারণ মানুষের মুক্তি। দেশ গড়ার জন্য মাত্র তিন বছর সময় পেলেও তা কাজে লাগিয়েছেন বহুমাত্রিক পরিকল্পনা আর উপযোগী সিদ্ধান্ত গ্রহণে। অনেক ক্ষেত্রেই তিনি ছিলেন সময়ের চেয়েও যোজন যোজন এগিয়ে। বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, উপযুক্ত সহযোদ্ধা পেলে দেশকে আরও বহুদূর এগিয়ে নিতে পারতেন বঙ্গবন্ধু।

জীবনের প্রতিটি পদক্ষেপ ছিল যার গরিব, খেটে মানুষের জন্য, তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। দেশ স্বাধীন করবার পর, পরিচালনার জন্য সময় পেয়েছিলেন একেবারেই অল্প। অথচ, সেই সময়ের মধ্যে দেশকে সচ্ছল করতে যা করেছেন, তা সত্যিই অকল্পনীয়।

বঙ্গবন্ধু দায়িত্ব নিয়েই ঝাঁপিয় পড়েন অবকাঠামো বিনির্মাণে। সেই সাথে, বাণিজ্য, শিল্প ও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে গতি আনতে নিতে থাকেন একের পর এক উদ্যোগ। পরিস্থিতির কারণে বহু উৎপাদনশীল প্রতিষ্ঠান রাষ্ট্রীয় মালিকানায় নিলেও, তাতে নিশ্চিত করেন শ্রমিকদের মালিকানা।

সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশে অসংখ্য সঙ্কট, অভাব অনটন আর মধ্যস্বত্ত্বভোগীদের দৌরাত্ম্য ঠেকাতে উঠে পড়ে লেগে যান বঙ্গবন্ধু। ধনী গরিবের বৈষম্য কমাতে, সীমা বেঁধে দেন জমির মালিকানার। দেশ সেরা অর্থনীতিবিদদের নিয়ে গঠন করেন পরিকল্পনা কমিশন। সেখানেও, পরবর্তী পাঁচ বছরের জন্য গুরুত্ব পায় শিল্পায়ন, স্বাস্থ্য-শিক্ষার মতো খাত। সমানতালে, শক্তিধর অর্থনীতিগুলোর সাথে যোগাযোগ শুরু করেন বহির্বাণিজ্য বাড়াতে। সার্বির ফলাফল, মাত্র তিন বছর দায়িত্বে থেকে ৯৫ ডলারের মাথাপিছু আয় নিয়ে যান ২৯১ ডলারে।

অর্থনৈতিক মুক্তি অন্যতম স্তম্ভ হিসেবে সবসময় বঙ্গবন্ধু গুরুত্ব দিয়েছেন কৃষির ওপর। তাইতো, খাদ্যশস্যসহ সার্বিক উৎপাদন বাড়াতে, বিনামূল্যে বিতরণের উদ্যোগ নেন যন্ত্রপাতি, সার, বীজ, সেচসহ প্রায় সব ধরনের উপকরণ।


অন্যান্য সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: