বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ১১:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
অসুস্থ গাফফার চৌধুরীকে ফোন করে খোঁজ-খবর নিলেন রাষ্ট্রপতি স্কটল্যান্ড হারলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ কক্ষপথে স্যাটেলাইট স্থাপনে ব্যর্থ হয়েছে দ. কোরিয়া স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী বন্ধ হচ্ছে না বৈধ-অবৈধ মোবাইল ফোন মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিসহ ২১৩ অভিবাসী আটক হিন্দুদের ওপর হামলা দেশের চেতনার বেদীমূলে হামলা : তথ্যমন্ত্রী জানুয়ারিতে বাড়তে পারে ক্লাসের সংখ্যা: শিক্ষামন্ত্রী ব্যাট-বলের ভারসাম্যে খুশী মাহমুদুল্লাহ ধামইরহাটে উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনে পুনরায় দেলদার হোসেন সভাপতি ও সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বিশাল জয়ে বিশ্বকাপের মূল পর্বে টাইগাররা ‘বিএনপি নেতারা রাজনীতি নয়, অফিসিয়াল দায়িত্ব পালন করছেন’ গোয়ালন্দ উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি গঠন মালিঙ্গাকে ছাড়িয়ে আফ্রিদিকে ধরে ফেললেন সাকিব রাডার কিনতে ফ্রান্সের সঙ্গে চুক্তি সই করোনায় ২৪ ঘণ্টায় বেড়েছে মৃত্যু, কমেছে শনাক্ত ঠাকুরগাঁওয়ে বাল্যবিবাহের অপরাধে ইউপি চেয়ারম্যান ও কাজি সহ আটক ০৯ কখনও বলিনি বিশ্বকাপ জিতে বিয়ে করব: রশিদ খান নারী ও শিশু উন্নয়ন বিষয়ক সাংবাদিক প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপন ধামইরহাটে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ মন্ডলকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন

প্রতি ঘণ্টায় ৫টি তালাকের আবেদন

রিপোর্টারের নাম
প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ১১:০৫ অপরাহ্ন
প্রতি ঘণ্টায় ৫টি তালাকের আবেদন

প্রতি ঘণ্টায় ৫টি করে তালাকের আবেদন জমা পড়ে মালয়েশিয়ায়। দেশটির প্রধানমন্ত্রীর আইন বিভাগের উপমন্ত্রী এরমেয়াতি সামসুদিন এ কথা জানিয়েছেন।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম দ্য স্টারের প্রতিবেদন অনুযায়ী, এরমেয়াতি বলেছেন- অমুসলিম দম্পতিদের পক্ষ থেকে প্রতিদিন গড়ে ১৮টি বিচ্ছেদের আবেদন জমা পড়ে। অন্যদিকে ১২১ মুসলিম দম্পতি গড়ে প্রতিদিন একই আবেদন করেন। সব মিলে মুসলিম অধ্যুষিত মালয়েশিয়ায় প্রতি ঘণ্টায় গড়ে ৫টি তালাকের আবেদন জমা পড়ে।

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) মালয়েশিয়ার পার্লামেন্ট দেওয়ান রাকায়েতে এমপি নূর আমিন আহমেদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। এরমেয়াতি সামসুদিন আরো বলেন, এই যে আমরা যখন এই আলোচনা করছি, এই সময়ে কোন না কোনো দম্পতি তালাক চেয়ে আবেদন করেছেন। তিনি প্রশ্ন রাখেন- এটা কি খুব উদ্বেগের ব্যাপার না?

এর আগে তিনি পার্লামেন্টকে জানান ২০২০ সালের মার্চ থেকে এ বছর আগস্ট পর্যন্ত অমুসলিম এবং মুসলিম মিলে কমপক্ষে ৭৬ হাজার বিচ্ছেদের আবেদন করেছেন। এর মধ্যে অমুসলিম দম্পতির আবেদন ১০ হাজার ৩৪৬টি। সবচেয়ে বেশি আবেদন জমা পড়েছে সেলাঙ্গর থেকে। সেখানে এই সংখ্যা ৩১৬০। এরপরেই কুয়ালালামপুর রয়েছে। সেখানে এই সংখ্যা ২৮৯৩।

এরমেয়াতি সামসুদিন বলেন, ওই সময়ে মুসলিম দম্পতিদের কাছ থেকে জমা পড়েছে ৬৬ হাজার ৪৪০টি আবেদন। এক্ষেত্রেও শীর্ষে রয়েছে সেলাঙ্গর। সেখানে এ সংখ্যা ১২ হাজার ৪৭৯। তারপরে জোহর (৭৫৫৮) এবং কেদাহ (৫৯৮৫)।

তিনি আরো বলেন, যে পরিমাণ বিচ্ছেদের আবেদন জমা পড়েছে সেই সংখ্যা উল্লেখ করেছি। এর অর্থ এই নয় যে, প্রতিটি বিয়েতে বিচ্ছেদ ঘটেছে। এসব আবেদন দেখাশোনা করে সংশ্লিষ্ট আদালত। তবে যেভাবে বিচ্ছেদ চেয়ে আদালতে যাওয়া দম্পতির সংখ্যা বাড়ছে, তাতে অবশ্যই আমাদের ভাবা উচিৎ।


অন্যান্য সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: