রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০১:২০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ফরিদপুরের সালথায় ইমাম বাড়িতে ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা একনজরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ১৬ দলের খেলোয়াড় তালিকা অবশেষে নগরীতে নামলো স্বস্তির বৃষ্টি সৌদি জোটের হামলা: ইয়েমেনে নিহত ১৬০ ডেঙ্গুতে চলতি বছর আক্রান্ত ২১ হাজার ২শ ছাড়াল প্রতিদিন টিকা পাবে ৪০ হাজার শিশু ডেঙ্গু আক্রান্ত ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মার্কিন যুদ্ধজাহাজকে রাশিয়ার ধাওয়া টেকসই স্যানিটেশন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সমন্বিত প্রয়াসের আহ্বান ‘সরকার সবার জন্য নিরাপদ স্যানিটেশন নিশ্চিত করতে বদ্ধপরিকর’ ওমরাহ যাত্রীদের জন্য নতুন নির্দেশনা সাম্প্রদায়িক সংঘাতের চেষ্টায় আ.লীগের এজেন্টরা জড়িত: ফখরুল দ্রব্যমূল্য থেকে মানুষের চোখ সরাতেই কুমিল্লার ঘটনা: মান্না এই সরকারের অধীনে আর কোনো নির্বাচন নয়: সাকি প্রচণ্ড তাপে পুড়ছে দেশের ১৮ অঞ্চল সকালে দলের সঙ্গে যোগ দিলেন সাকিব রুহিয়া থানা বিএনপির মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত গোবিন্দগঞ্জে শহীদ মিনারের ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন গাইবান্ধায় বিশ্ব খাদ্য দিবস পালিত অস্ত্রসহ একজনকে আটক করেছে র‌্যাব-৫

পশ্চিম ভোলায় নদী ভাঙন, বাঁধ নির্মাণের উদ্যোগ নেই

ভোলা প্রতিনিধি
প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০১:২০ পূর্বাহ্ন
পশ্চিম ভোলায় নদী ভাঙন, বাঁধ নির্মাণের উদ্যোগ নেই

তেঁতুলিয়া নদীর ভাঙনের কবলে পড়েছে পশ্চিম ভোলা। নদী তীরের প্রায় আট কিলোমিটারে চলছে ভাঙন। গত কয়েক বছরে ফসলি জমিসহ সহস্রাধিক বসতবাড়ি নদীতে বিলীন হয়েছে। এদিকে এই এলাকায় অর্থনৈতিক অঞ্চল, বিশ্ববিদ্যালয়, বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের উদ্যোগে নেওয়া হচ্ছে। কিন্তু বন্যা-জলোচ্ছ্বাস নিয়ন্ত্রণ ও তীর সংরক্ষণ বাঁধ নির্মাণে উদ্যোগ নেই। ভোলার সদর উপজেলার পশ্চিমে দুটি ইউনিয়ন-ভেদুরিয়া ও ভেলুমিয়া। এই এলাকা পশ্চিম ভোলা নামে পরিচিত। আয়তন প্রায় ১০০ বর্গকিলোমিটার।
ভেদুরিয়া ইউনিয়নের ব্যাঙ্কেরহাট বাজারের পাশে টেক্সটাইল ট্রেনিং ইনস্টিটিউট, স্কুল-কলেজ, উপজেলা মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র, মসজিদ-মাদ্রাসাসহ শতাধিক সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। উত্তর ভেদুরিয়ায় আছে গ্যাসফিল্ড, লঞ্চঘাট ও ফেরিঘাট। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, ভেদুরিয়ায় অর্থনৈতিক অঞ্চল, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বিদ্যুৎ উৎপাদনকেন্দ্র, ভোলা-বরিশাল সেতু প্রভৃতি গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে। অনেক স্থানে জমি অধিগ্রহণের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। সড়ক ও জনপথ বিভাগের সড়ক দিয়ে খেয়াঘাট সেতু পার হয়ে ভোলার পশ্চিমাংশে যেতে যায়। এ অংশের উত্তর-পূর্বে খেয়াঘাট নদী। আর পশ্চিম-দক্ষিণে তেঁতুলিয়া নদী। উত্তর ভেদুরিয়ার মাঝির হাটে রয়েছে গ্যাসফিল্ড। সম্প্রতি সরেজমিনে দেখা যায়, খেয়াঘাট নদীর ট্যাকের হাট থেকে ভাঙন শুরু। সেখান থেকে ভেদুরিয়া লঞ্চঘাট, লঞ্চঘাটের দক্ষিণে চটকিমারা খেয়াঘাট, ব্যাঙ্কেরহাট, আরও দক্ষিণে ভেদুরিয়া শাজাহান বাজারও (তেঁতুলিয়ার তীরে) ভাঙনকবলিত। নদীর তীরেই টেক্সটাইল ট্রেনিং ইনস্টিটিউট সহ সব প্রতিষ্ঠানের অবস্থান।
ভেদুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম বলেন, পশ্চিম ভোলা দিনে দিনে জেলার গুরুত্বপূর্ণ এলাকা হয়ে উঠছে। এখানে সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠছে। জেলা প্রশাসন আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান নির্মাণের জন্য প্রস্তাব পাঠিয়েছে। কিন্তু পশ্চিম ভোলা সম্পূর্ণ অরক্ষিত। গত মে মাসে ইয়াসের প্রভাবে জোয়ার-জলোচ্ছ্বাসে ইউনিয়নের ছয়টি ওয়ার্ডের ফসলি খেত তলিয়ে যায়। রাস্তাঘাট বেহাল হয়ে গেছে। ৪ নম্বর ওয়ার্ডের উত্তর ভেদুরিয়া গ্রামের মোল্লাবাড়ির দরজা থেকে ৬ নম্বর ওয়ার্ডের চটকিমারা খেয়াঘাট পর্যন্ত এবং দক্ষিণ ভেদুরিয়া গ্রামে ৬-৭ কিলোমিটার ভাঙন কবলিত। ভেলুমিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল সালাম বলেন, তাঁর ইউনিয়নের দক্ষিণে কিছু অংশ ভাঙন কবলিত। বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ না থাকায় প্রতিবছর জোয়ার-বন্যায় লবণ পানি উঠে ফসলের ক্ষতি হচ্ছে। এতে অনেক মানুষ সর্বস্বান্ত হয়ে এলাকা ছেড়েছে। ইয়াসেও ক্ষতি হয়েছে ঘরবাড়ি, সবজিখেত ও মাছের ঘেরে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, পশ্চিম ভোলার ওই অংশে প্রায় সাড়ে আট হাজার হেক্টর জমি কৃষি-আবাদের আওতায়। কিন্তু জোয়ার-জলোচ্ছ্বাসের উচ্চতা বৃদ্ধি পেয়ে ওই এলাকা প্লাবিত হয়ে ফসলের ক্ষতি হচ্ছে। চলতি বছর দুই দফায় প্লাবিত হয়ে ফসলের ক্ষতি হয়েছে।
ভোলা পানি উন্নয়ন বোর্ড-১–এর নির্বাহী প্রকৌশলী মো. হাসানুজ্জামান বলেন, সম্প্রতি তাঁরা পশ্চিম ভোলার ইউনিয়নগুলো পরিদর্শন করেছেন। সেখানে বেশ কিছু অংশে ভাঙন চলছে। উত্তর ভেদুরিয়ার মাঝিরহাট থেকে চটকিমারা চর খেয়াঘাট পর্যন্ত আড়াই কিলোমিটার এলাকায় তীব্র ভাঙন রয়েছে। ওই এলাকায় ব্লক বাঁধ নির্মাণে নকশা করতে দেওয়া হয়েছে। এরপর ডিপিপি তৈরি করা হবে। পরে অনুমোদনের জন্য ঢাকায় পাঠানো হবে। ব্লক বাঁধের সঙ্গে বন্যা-জলোচ্ছ্বাস নিয়ন্ত্রণ বাঁধও নির্মাণ করা হবে।


অন্যান্য সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: