রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৩:১৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শিশু কন্যাকে ধর্ষনের অভিযোগে কিশোর আটক চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা আ.লীগ থেকে লিটন বহিষ্কার গোয়ালন্দ উপজেলার ১ঘণ্টার জন্য ইউএনও দশম শ্রেণির ছাত্রী বাবলী জয় দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু অস্ট্রেলিয়ার জয় দিয়ে সুপার টুয়েলভ শুরু করতে চায় বাংলাদেশ ২০২২ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সরাসরি খেলবে বাংলাদেশ অনেকবার মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এসেছি: কঙ্গনা সাম্প্রদায়িক হামলার সবাইকে চিহ্নিত করেছি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সোনারগাঁয়ে জাতীয়পার্টির নেতৃবৃন্দ আওয়ামীলীগে যোগদান রোববার পায়রা সেতু উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী ডেঙ্গুতে মৃত্যু ২, হাসপাতালে ১৮৯ মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলে সৈন্য সমাবেশ, গণহত্যার শঙ্কা জাতিসংঘের হাওর বাঁচাও আন্দোলনের জেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত ফরিদপুরে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে নিহত-১,আহত-৩০ সরকার হিন্দু সম্প্রদায় ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়িয়েছে: স্পিকার রোহিঙ্গাদের চুলের মুঠি ধরে ওপারে পাঠাতে হবে: শুভেন্দু মামলার জট কমাতে ‘মধ্যস্থতা’ প্রক্রিয়া বড় ভূমিকা রাখতে পারে: প্রধান বিচারপতি গাইবান্ধায় নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম লাগামহীন সাদুল্লাপুরে পরিত্যক্ত কলাগাছে ১০টি মোচা উঠানের রিংপার্টের পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

দৌলতদিয়া ঘাটে বৃষ্টিতে ঘরমুখো মানুষের দুর্ভোগের মাত্রা দ্বিগুন

রিপোর্টারের নাম
প্রকাশের সময় : রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৩:১৩ পূর্বাহ্ন
দৌলতদিয়া ঘাটে বৃষ্টিতে ঘরমুখো মানুষের দুর্ভোগের মাত্রা দ্বিগুন

রাত পোহালেই ঈদ। ঘরমুখো হচ্ছে কর্মজীবি সাধারণ মানুষ। মহাসড়ের যানজট থাকায় দুর্ভোগের শিকার হয়ে ঘরে ফিরছে সাধারণ মানুষ। তবে সকাল থেকে টানা বৃষ্টির কারণে দুর্ভোগের মাত্রা দ্বিগুন হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার সকালে দৌলতদিয়া ঘাট এলাকা ঘুরে ও ঘরমুখো মানুষের সাথে কথা বলে এমনি চিত্র দেখা ও জানা যায়।

এদিকে টানা বৃষ্টির মধ্যে অনেক যাত্রী মোটরবাইক ও গণপরিবহনে যাওয়ার চেষ্টা করছে। আবার অনেক যাত্রী বিভিন্ন হোটেল ও দোকানে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছে। তবে দৌলতদিয়া পারে পর্যাপ্ত পরিমান গণপরিবহন থাকার কারণে ঘরমুখো যাত্রীরা নদী পার হয়ে এসে সহজে গৌন্তব্য স্থানে যেতে পারছেন।

এ সময় কথা হয় ফরিদপুর গামী শামসুর নাহার নামের এক নারীর সাথে। তিনি বলেন, ঈদে কষ্ট জানি। তবে এতটা কষ্ট হবে কখনও বুঝতে পারি নাই। বৃষ্টিতে সন্তান নিয়ে সম্পন্ন ভিজে গেছি। তিনি আরও বলেন, এত কষ্ট হবে জানলে ঢাকায় থেকে আসতাম না।

কথা হয় গোপালগঞ্জ গামী সুবর্ণা আজমীর নামের এক ব্যক্তি সাথে তিনি বলেন, কষ্ট হবে ভেবে জেনেও ঢাকা থেকে এসেছি। কিন্ত বৃষ্টিতে ভিজতে হবে এটাতো ভাবি নাই। এখন বৃষ্টিতে সারা শরীর ভিজে গেছে। সাথে থাকা শিশু বাচ্চাও ভিজে গেছে। এই ভিজা শরীর নিয়ে গোপালগঞ্জ যেতে হবে। জানি না, কি হয়।

করিব হোসাইন নামের এক যাত্রী বলেন, পাটুরিয়া ঘাট থেকে ভিজতে শুরু করেছি। এখনও বৃষ্টিতে ভিজতে হচ্ছে। আরও কত ভিজতে হবে কে জানে। তিনি বলেন, ভিজা শরীর নিয়ে আরও কত সময় পর বাড়িতে যেতে পারব। এটা সঠিক বলতেও পারছি না।


অন্যান্য সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: