মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৮:০৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
গৌরীপুরে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শেখ রাসেল দিবস পালিত হবিগঞ্জে শেখ রাসেল-এর ৫৮তম জন্মদিন উদযাপন সাম্প্রদায়িক অপতৎপরতা রুখতে মাঠে নামছে আ. লীগ ফেনীর নতুন পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মামুন হিজবুল্লাহর ভয়ে যুদ্ধে জড়াবে না ইসরায়েল পদোন্নতি পেলেন ডিএমপি কমিশনার ও র‍্যাব মহাপরিচালক শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন উদযাপিত করোনায় কমেছে মৃত্যু, বেড়েছে শনাক্ত ২১ অক্টোবর শুরু হচ্ছে সাত কলেজের সশরীরে ক্লাস ‘কুমিল্লার ঘটনা সাজানো, সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে পীরগঞ্জে হামলা’ ‘বুলেটের আঘাতে যেন আর কোন শিশুর প্রাণ না যায়’ জাপানে শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন উদযাপিত কেরালায় ভয়াবহ বন্যায় মৃত্যু বাড়ছে দলের সংগে পাপনের জরুরি সভা, ঝাড়লেন রাগ রংপুর-ফেনীর এসপিসহ কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তা বদলি কিউকমের আরজে নিরব ও রিপন ফের রিমান্ডে সরকারকে প্রশ্নবিদ্ধ করতেই পীরগঞ্জে হামলা : তথ্যমন্ত্রী ‘শেখ রাসেল স্বর্ণ পদক’ বিতরণ করলেন প্রধানমন্ত্রী নেই কোনো নদী শাসন ব্যবস্থা বেতন আর মেয়াদ দুটোই বাড়তে যাচ্ছে ডোমিঙ্গোর

টুং টাং শব্দে মুখর ফটিকছড়ির কামার পল্লী

ফটিকছড়ি (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৮:০৫ পূর্বাহ্ন
টুং টাং শব্দে মুখর ফটিকছড়ির কামার পল্লী

দরজায় কড়া নাড়ছে ঈদ-উল-আযহা। আর মাত্র এক দিন পরেই কুরবানি ঈদ। মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসবের অন্যতম হচ্ছে ঈদু-উল-আযহা। আর এই ঈদে মুসলিম ধর্মের অনুসারীরা আল্লাহকে রাজি খুশি করতে পশু জবাই করে থাকে। এই পশু জবাইয়ের জন্য প্রয়োজন হয় বিভিন্ন ধরনের সরঞ্জামাদি। মাংস কাটা এবং কুরবানির পশু জবাই করার বিভিন্ন ধাপে ছুরি, দা, চাপাতি এসব ব্যবহার করা হয়। তাই পশু কুরবানিকে কেন্দ্র করে কামার পল্লীগুলো অনেকটা ব্যস্ত সময় পার করছে। দগদগে আগুনে গরম লোহায় ওস্তাদ-সার্গেদের পিটাপিটিতে মুখর হয়ে উঠেছে কামার পল্লীগুলো। প্রস্তুত করছেন জবাই সামগ্রী।

কোরবানি ঈদেই যাদের একমাত্র কদর, টুং টাং শব্দে ব্যস্ত চট্টগ্রামের ফটিকছড়ির কামাররা।উপজেলার বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায় ঈদ-উল-আযহা সামনে রেখে পশু জবাইয়ের সরঞ্জাম প্রস্তুতে ব্যস্ত সময় পার করছেন কামার শিল্পের কারিগররা। কয়লার দগদগে আগুনে লোহাকে পুড়িয়ে পিটিয়ে তৈরি করছেন সব ধারালো সামগ্রী। তবে এসব তৈরিতে এখনো আধুনিকতার কোন ছোঁয়া লাগেনি। পুরানো সেকালের নিয়মেই চলছে আগুনে পুড়ে লোহা হতে ধারালো সামগ্রী তৈরির কাজ। জমে উঠেছে দা, কাচি, হাসুয়া, কোপা, ছুরি, চাপাতির বেচাকেনা।ফলে এই মুহুর্ত্বে ব্যাস্ত সময় পার করছে ব্যবসায়ীরা। তবে আগের মতো নেই বিকিকিনি।

উপজেলার নানুপুর বাজারের প্রবীণ ব্যবসায়ী ভবতোষ জানান, সারাবছর বেচাকেনা কিছুটা কম থাকে, কোনোরকম দিন যায়।এই সময়ের জন্য সারা বছর অপেক্ষায় থাকি।কুরবানির ঈদের আগে এক সপ্তাহ ভালো বেচাকেনা হয়। ওই সময় দামও ভালো পাওয়া যায়।

নগরে এসব জিনিস কেজিতে বিক্রি হলেও ফটিকছড়িতে বিক্রি হচ্ছে প্রতি পিস হিসেবে। ফটিকছড়ির বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায় প্রতি পিস দেশী চাপাতির দাম ৬০০ থেকে ৮০০ টাকা পর্যন্ত। এছাড়া বিদেশি চাপাতির দাম ৭০০ থেকে ২ হাজার টাকা। লোহার তৈরি ছোট ছুরি ৬০ থেকে ২৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। জবাই ছুরি মিলছে ৫০০ থেকে ৮০০ টাকায়। দা-বঁটি বিক্রি হচ্ছে ৩৫০ থেকে ৭০০ টাকায়।


অন্যান্য সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: