মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৫:১০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
অবশেষে এসপি’র হস্তক্ষেপে থানায় মামলা! যশোরে চোরাই ইজিবাইকসহ আটক ৪ স্বাধীনতাবিরোধী চক্রই দেশের সাম্প্রদায়িক হামলার জন্য দায়ী: ইনু মানিকগঞ্জে জাতীয় স্যানিটেশন মাস ও বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস উদযাপন চকরিয়ায় পরোয়ানাভুক্ত আসামী গ্রেফতার ডিমলায় নিখোঁজের পাঁচদিন পর তিস্তা নদী থেকে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার সাম্প্রদায়িক হামলা চালিয়ে রাজনৈতিক ফায়দার চেষ্টা বিএনপি’রঃ নানক বাংলাদেশকে ৫০০ মিলিয়ন ইয়েন অনুদান দিচ্ছে জাপান এ মাসে প্রবাসী আয় ১০০ কোটি ডলার ছাড়ালো জয় বাংলা ইয়ুথ এ্যাওয়ার্ডের আবেদনের সময় বাড়লো ভোলাহাটে ভেজাল আইসক্রীম কারখানায় র‌্যাবের অভিযান ৫৯ বিজিবি’র শিয়ালমারা সীমান্তে অভিযান ॥ ফেন্সিডিলসহ আটক ১ ২৪ ঘন্টায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে নতুন ১৯০ জন রোগী ভর্তি অপারেশন শেষে আইসিইউতে খালেদা জিয়া উমরাহ পালনে আর ১৪ দিনের অপেক্ষা নয় ভারতের কেরালা রাজ্যে বন্যায় প্রাণহানিতে মোমেনের শোক বহিস্কৃত নেতাকে মনোনয়ন দেয়ার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন বিদ্যুৎ সম্পর্কিত সব মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির সুপারিশ রৌমারীতে সার সংকটে কৃষক বিপাকে মেলান্দহে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত-১, আহত ২

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে চাঁদপুরে সাংবাদিকের সাথে মত বিনিময়

চাঁদপুর প্রতিনিধি
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৫:১০ পূর্বাহ্ন
জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে চাঁদপুরে সাংবাদিকের সাথে মত বিনিময়

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০২১ উপলক্ষে চাঁদপুরে সাংবাদিকের সাথে মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার ১১ টায় জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে চাঁদপুর জেলা প্রশাসন ও মৎস্য অধিদপ্তরের আয়োজনে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশের সভাপতিত্বে ও জেলা মৎস্য কর্মকর্তা গোলাম মেহেদী হাসানের সঞ্চালনায় এ সময় জেলেদের তালিকার হালনাগাদ, পদ্মা-মেঘনায় ইলিশের প্রাপ্যতা ও মৎস্য উন্নয়নে বিশেষ আলোচনা করা হয়। পাশাপাশি ইলিশের উপর গবেষণা মূলক বক্তব্য রাখেন ইলিশ গবেষক ড. আনিছুর রহমান।

সভায় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা জানান, আগামী ৩১ আগস্টের মধ্যে জেলেদের তালিকার হালনাগাদ জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

সভাপতির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ বলেন, হালনাগাদের বিষয়ে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। যাতে যে সমস্ত জেলে ইতিমধ্যে তাদের পেশা পরিবর্তন করেছেন বা মারা গেছেন তাদের কেউই যেন নতুন হালনাগাদে অন্তর্ভুক্ত না হয়। পাশাপাশি হালনাগাদ করার সময় এলাকার স্থানীয় বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও জনপ্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে যেন তালিকা তৈরি করা হয় তারও নির্দেশনা দেওয়া আছে।

তিনি আরো বলেন, অভয়াশ্রম চলাকালে জেলেরা যদি অন্য কোন কাজে ব্যস্ত থাকেন তাহলে তারা নদীতে নামবে না বা যারা এই কাজে সম্পৃক্ত থাকেন তারাও তাদেরকে নদীতে নামতে উৎসাহিত করতে পারবে না। অভয়আশ্রম চলাকালে আমরা যেসব ছেলেদের কারাগারে প্রেরণ করি আমি কখনোই চাইনা অসহায় এই মানুষগুলো কারাগারে থাকুক। কারণ তারা পেটের টানেই নদীতে নামতে বাধ্য হয়। আটককৃত জেলেদের ক্ষেত্রে আমার নির্দেশনা দেওয়া আছে অভিযান শেষে তারা যখনই জামিন আবেদন করবে তাদেরকে যেন জামিন দিয়ে দেওয়া হয়। কারণ তারা কিন্তু কোন ক্রিমিনাল নয়, জামিন না পেলে এই অসহায় মানুষগুলোর পরিবার পরিজন বিপাকে পড়ে। অনেক সময় জামিন নিতে ও পরিবার পরিবারের সংসারের খরচ চালাতে তাদেরকে বিভিন্ন কিস্তি অথবা লোন নিতে হয় যা তাদের জন্য পরিশোধ করা অনেক কষ্টসাধ্য।

তিনি বলেন, অতীতে আমরা দেখেছি কিছু কিছু অসাধু জনপ্রতিনিধি মা ইলিশ নিধন ও জাটকা নিধনের সাথে জড়িত। নদীতে অভয় আশ্রম বাস্তবায়নে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের ভূমিকা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আমরা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদের সহযোগিতা কামনা করি।

তিনি বলেন, অভয় আশ্রম চলাকালে জেলেদের জন্য যে খাদ্য সহায়তা (চাল) দেওয়া হয়। তার পরিবর্তে তাদেরকে আর্থিক সহায়তা প্রদানের জন্য ইতিমধ্যে আমি লিখিত সুপারিশ করেছি। তাদেরকে ১০ টাকা মূল্যের একটি একাউন্ট করে দেওয়া হবে যে একাউন্টে সরাসরি কাদের কাছে টাকা পৌঁছে যাবে। কেননা জেলেরা অনেক সময় চাল নিতে অনেক হয়রানির শিকার হয় এবং অনেক সময় দেখা যায় সঠিক সময়ে তারা চাল সংগ্রহ করতে পারেন না। অভয়াশ্রমের ওই দুই মাস আমরা যদি তাদেরকে অন্যকোন কর্মসংস্থানের জন্য ট্রেনিং এর আওতায় ব্যস্ত রাখতে পারি তাহলেই তারা নদীতে নামবে না। পাশাপাশি তাদের আরেকটি কাজ শেখা হয়ে যাবে।

ইলিশ গবেষক ডাক্তার আনিছুর রহমান বলেন, কয়েকদিন আগে আমরা দেখেছি একটি জালে ১৮৭ মণ ইলিশ ধরা পড়েছে। এতে বুঝা যায় ইলিশ উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে এবং ইলিশ আছে। চাঁদপুরে পদ্মা ও মেঘনার ইলিশ না পাওয়ার অন্যতম একটি প্রধান কারণ হচ্ছে বুড়িগঙ্গা ও শীতলক্ষ্যা নদীর দূষণ। এছাড়াও ইলিশ চলাচলের প্রধান এই রুটি তীব্র নাব্যতায় ভুগছে। নাব্যতা কতটা কমেছে তা প্রমাণের জন্য আপনারা শুধু ফেরীগাট গুলোর অবস্থায় দেখুন। হরিনা ফেরিঘাট, মাওয়া ফেরিঘাটসহ যেসমস্ত ফেরিঘাটগুলো রয়েছে সেগুলোতে নাব্যতার কারণে এখন অনেক সময় ফেরি চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে।

তাছাড়া নদী থেকে যেভাবে বালু তোলা হচ্ছে তা পুরোপুরি অপরিকল্পিতভাবে হচ্ছে। এই বালুকাটা শুধু ইলিশের ডিমের উপর ক্ষতিকর নয় মাছের পুরো বাস্তুতন্ত্রে আঘাত করে। শুধু ইলিশ নয় পদ্মা-মেঘনায় খেয়াল করলে দেখবেন অন্যান্য মাছের প্রাপ্যতা ও কমে গেছে। তিনি বলেন, নদীতে পরিকল্পিত ড্রেজিং করা হলে দুই দিক দিয়ে উপকার পাওয়া যাবে। এক, নদী নাব্যতা ফিরে পাবে এবং ইলিশের উৎপাদন অনেক বেশি বৃদ্ধি পাবে।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, সদর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সুদীপ ভট্টাচার্য, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী ও সাধারণ সম্পাদক রহিম বাদশা, জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাসহ জেলায় কর্মরত ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার অন্যান্য সাংবাদিকবৃন্দ।


অন্যান্য সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: