শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ১২:৫১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
অসুস্থ গাফফার চৌধুরীকে ফোন করে খোঁজ-খবর নিলেন রাষ্ট্রপতি স্কটল্যান্ড হারলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ কক্ষপথে স্যাটেলাইট স্থাপনে ব্যর্থ হয়েছে দ. কোরিয়া স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী বন্ধ হচ্ছে না বৈধ-অবৈধ মোবাইল ফোন মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিসহ ২১৩ অভিবাসী আটক হিন্দুদের ওপর হামলা দেশের চেতনার বেদীমূলে হামলা : তথ্যমন্ত্রী জানুয়ারিতে বাড়তে পারে ক্লাসের সংখ্যা: শিক্ষামন্ত্রী ব্যাট-বলের ভারসাম্যে খুশী মাহমুদুল্লাহ ধামইরহাটে উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনে পুনরায় দেলদার হোসেন সভাপতি ও সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বিশাল জয়ে বিশ্বকাপের মূল পর্বে টাইগাররা ‘বিএনপি নেতারা রাজনীতি নয়, অফিসিয়াল দায়িত্ব পালন করছেন’ গোয়ালন্দ উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি গঠন মালিঙ্গাকে ছাড়িয়ে আফ্রিদিকে ধরে ফেললেন সাকিব রাডার কিনতে ফ্রান্সের সঙ্গে চুক্তি সই করোনায় ২৪ ঘণ্টায় বেড়েছে মৃত্যু, কমেছে শনাক্ত ঠাকুরগাঁওয়ে বাল্যবিবাহের অপরাধে ইউপি চেয়ারম্যান ও কাজি সহ আটক ০৯ কখনও বলিনি বিশ্বকাপ জিতে বিয়ে করব: রশিদ খান নারী ও শিশু উন্নয়ন বিষয়ক সাংবাদিক প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপন ধামইরহাটে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ মন্ডলকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন

চীনে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার জন্য ডেল্টা ধরণকে দায়ী

রিপোর্টারের নাম
প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ১২:৫১ অপরাহ্ন
চীনে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার জন্য ডেল্টা ধরণকে দায়ী

চীনে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় তা নিয়ন্ত্রণে জোর প্রচেষ্টা চলছে। এদিকে দেশটির কর্মকর্তারা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার জন্য করোনার ডেল্টা ধরণকে দায়ী করেছেন।
চীনের ১৪টি প্রদেশে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে। দেশটিতে জুলাই মাসে উপসর্গমূলক সংক্রমণের সংখ্যা ৩২৮ হয়েছে, যা ফেব্রুয়ারি থেকে জুন এ সময়ের সংখ্যার সমান।
এক প্রেস ব্রিফিংয়ে ন্যাশনাল হেলথ কমিশনের মুখপাত্র মি ফেং বলেছেন, বর্তমানে সংক্রমণের প্রধান ধরণই হলো ডেল্টা। এটি ভাইরাস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে বড় ধরনের চ্যালেঞ্জ তৈরি করেছে।
চীনের উহানে ২০১৯ সালে করোনা ভাইরাসের প্রথম প্রাদুর্ভাব ঘটে। চীন খুবই সাফল্যের সঙ্গে ভাইরাসটি নিয়ন্ত্রণে সক্ষম হয়। কিন্তু নতুন ধরণের এই ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে দেশটিকে এখন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হয়েছে।
চীনের পূর্বাঞ্চলীয় জিয়াংসু প্রদেশের নানজিং বিমানবন্দর থেকে ডেল্টা ধরণ ছড়িয়ে পড়ে। বর্তমানে ওই প্রদেশের শত শত লোক লকডাউনে রয়েছে।
তবে তীব্র সংক্রামক ডেল্টা ধরণের পাশাপাশি চীনে পর্যটন মৌসুম হওয়ায় সংক্রমনের ঝুঁকি অনেক বেশি বেড়ে গেছে।
শনিবার নতুন করে আরো দ’ুটি প্রদেশে সংক্রমিত রোগী পাওয়া গেছে। এ দ’ুটি প্রদেশ হলো ফুজিয়ান ও শানজি।
চাইনিজ সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল এন্ড প্রিভেনশনের ভাইরাসবিদ ফেং জিজিয়ান বলেছেন, ডেল্টা ধরণের বিরুদ্ধে কোভিড ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা কিছুটা কমেছে। তবে বর্তমানের এই ভ্যাকসিন এখনও ডেল্টা ধরণের বিরুদ্ধে যথেষ্ট কার্যকরী।
এদিকে চীনে দেশজুড়ে এ পর্যন্ত এক কোটি ৬০ লাখ ডোজ টিকা দেয়া হয়েছে।
স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বলছেন, তারা আশা করছেন চলতি বছরের শেষ নাগাদ ৮০ শতাংশ লোককে টিকার আওতায় নেয়া হবে।


অন্যান্য সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: