রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০২:৩৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বাংলার মাটি থেকে রাজাকারদের বিতাড়িত করবো: তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী স্ত্রীর মুখে বিষ ঢেলে হত্যার অভিযোগ স্বামীর বিরুদ্ধে বিগ বসে’ কি ফিরবেন শেহনাজ ২৪ ঘণ্টায় আরও ৫৩ ডেঙ্গু রোগী আক্রান্ত ভিকি-ক্যাট এর কোর্ট ম্যারেজ সম্পন্ন! জাওয়াদের প্রভাব : সেন্টমার্টিনে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ আল-আকসায় থাই সুন্দরী উত্তেজনা জেরুজালেমে সাকিবকে রেখেই নিউজিল্যান্ড সফরের দল ঘোষণা ওমিক্রনের মাঝে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যাচ্ছে ভারত যবিপ্রবির প্রথম বর্ষ ভর্তির মেধা তালিকা প্রকাশ বাংলাদেশে আবারো চালু হলো (ভিসা অন-অ্যারাইভাল) হিলি ইমিগ্রেশন ও স্থলবন্দরে ওমিক্রন প্রতিরোধে বাড়তি সতর্কতা হিলি স্থলবন্দর পরিদর্শন করলেন এনবিআর চেয়ারম্যান শিবগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে সংঘর্ষে আহত ৩ মরা গাছে টেন্ডারে তাজা গাছে করাত টঙ্গীতে হাফ ভাড়ার দাবিতে শিক্ষার্থীদের মহাসড়ক অবরোধ অন্ত:সত্ত্বা নারীর উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় গ্রেফতার ১ রাজনৈতিক ইন্ধন আছে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে : সেতুমন্ত্রী গরুর খামারে পুলিশ পরিচয়ে ডাকাতি, ১৫টি গরু লুট গোয়ালন্দে ইয়াবাসহ আটক ২

চা খেলে কি হয়! জেনে নিন অবাক করা তথ্য

রিপোর্টারের নাম
প্রকাশের সময় : রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০২:৩৬ পূর্বাহ্ন
চা খেলে কি হয়! জেনে নিন অবাক করা তথ্য

ছোটবেলা থেকে সবার মুখে মুখে শুনে আসছি- চা খেও না, গায়ের রঙ কালো হয়ে যাবে। ছোটবেলায় মা-বাবা এমন ভয় দেখালে আর চা খাওয়া হতো না।

সত্যিই কি এমনটা হয়? নাকি এটা একটা ভ্রান্ত ধারণা? চলুন দেখে নেওয়া যাক। জীবনধারাবিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাই-এ জানানো হয়েছে চা খেলে মানুষ কালো হয় কি না।

চায়ের সংগে গায়ের রঙের সম্পর্ক
চা খেলে যদি বাস্তবিকই কেউ কালো হয়ে যেতো, তাহলে তো ইংরেজ ও আইরিশদের গায়ের রং আগেই পাল্টে যেতো। কিন্তু তাতো হয়নি।

আসলে কে কালো হবে, কে ফর্সা তা অনেকাংশেই নির্ভর করে ত্বকের অন্দরে থাকা মেলানিন নামে একটি উপাদানের ওপর। কোনো গবেষণায় আজ পর্যন্ত প্রমাণ হয়নি যে চা খেলে মেলানিনের পরিমাণ বেড়ে যায়। তাই চা খেলে কালো হয়ে যাব-এই ধারণাটাকে কতোটা গুরুত্ব দেওয়া যেতে পারে, তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যায়।

জিনগত কারণ এবং রোদে কতোটা সময় কাটানো হচ্ছে, এই দুইটি বিষয়ের ওপর গায়ের রং অনেকাংশেই নির্ভর করে থাকে।

আমাদের শরীরকে ভালো রাখতে লিকার চা এবং গ্রিন-টি বিশেষ ভূমিকা পালন করে। দেখে নিন তেমনই কিছু উপকার:

হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা কমে
একাধিক গবেষণায় এই কথা প্রমাণিত হয়েছে যে প্রতিদিন দুই/তিন কাপ গ্রিন টি পান করলে হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা প্রায় ২০ শতাংশ এবং স্ট্রোকের আশঙ্কা প্রায় ৩৫ শতাংশ হ্রাস পায়। সেই সংগে কমে হাই কোলেস্টেরলের মতো রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা।

চা-এ রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট
একাধিক রোগের উপসমে এই উপাদান বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। সেইসংগে ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতেও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট-এর কোনো বিকল্প হয় না বললেই চলে। পরিবেশ দূষণের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে ত্বক এবং শরীরকে বাঁচাতে এই উপাদান বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

হজম ক্ষমতা বাড়ায়
হারবাল চা খাওয়ার অভ্যাস করলে ইরিটেবল বাওয়েল সিনড্রোম বা বদহজমসহ একাধিক পেটের সমস্যা কমায়। তাই যাঁরা এমন কোনো রোগে ভুগছেন, তাঁরা আজ থেকেই হারবাল টি খাওয়া শুরু করুন। দেখবেন, দারুণ উপকার পাবেন।

দাঁতের সুন্দর্য বাড়ায়
জাপানে হওয়া এক গবেষণায় এই কথা প্রমাণিত হয়েছে যে লিকার চা পান করলে মুখগহ্বরে পিএইচ লেভেল বেড়ে যায়। ফলে ক্যাভিটি হওয়ার আশঙ্কা কমে। শুধু তাই নয়, আরো বেশ কিছু মুখগহ্বরের রোগ সারাতেও লিকার চা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

হাড়ের উন্নতি ঘটে
প্রতিদিন গ্রিন টি খেলে হাড় মজবুত হয়। সেই সংগে এই সম্পর্কিত নানাবিধ রোগের প্রকোপ কমায়।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উন্নতি ঘটায়
একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে, লিকার চা পান করলে আমাদের শরীরে ইমিউন সেলের কর্মক্ষমতা বেড়ে যায়। ফলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা এতোটাই বেড়ে যায় যে নানাবিধ সংক্রমণের আশঙ্কা বহুলাংশে হ্রাস পায়।

চা ত্বকের ক্ষতি করে না
নিয়মিত চা পান করলে তা ক্ষতি করে না বরং অনেক ধরনের উপকারিতা নিয়ে আসে। তবে তা খেতে হবে পরিমিত। সব খাবারেরই একটি মাত্রা রয়েছে, কোনো খাবার বেশি খেয়ে ফেললে তার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেবেই। চায়ের ক্ষেত্রেও এটি সত্যি। তবে প্রতিদিন দুই-তিন কাপ চা ক্ষতি নয়, বরং উপকার করে। শরীরকে ভেতর থেকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে চা। সেইসংগে বাড়ায় ত্বকের উজ্জ্বলতা। প্রতিদিন এককাপ আদা দেওয়া চা খেলে সুস্থ থাকবেন অনেকটাই। সুস্থ থাকলে তার ছাপ পড়বে ত্বকেও।

মানসিক চাপ কমায়
মানসিক চাপ আমাদের নানাভাবে ক্ষতি করে। হতাশা, স্ট্রেস ইত্যাদি থেকে বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা দেখা দেওয়াও অস্বাভাবিক নয়। মানসিক চাপ কাটাতে চা বেশ উপকারী পানীয়। প্রতিদিন চা পান করলে তা আপনাকে অনেকটাই স্ট্রেসমুক্ত রাখবে। হতাশা না থাকলে চেহারায়ও ক্লান্তি আসবে না।

শরীরে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখে
রক্ত চলাচল বাধাগ্রস্ত হলে তা আমাদের মারাত্মক সব অসুখের কারণ হতে পারে। সুস্থ থাকার জন্য শরীরে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক থাকা জরুরি। প্রতিদিন চা খেলে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক হয়। এর ফলে ত্বকও থাকে সতেজ ও উজ্জ্বল।

প্রদাহ কমায়
শুধু কফিতে নয়, চা-এও থাকে ক্যাফেইন। এই ক্যাফেইনের রয়েছে অনেক ভালো গুণ। তার ভেতরে একটি হলো, এটি শরীরে সৃষ্ট ইনফ্ল্যামেশন বা প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে। তাই প্রদাহ থেকে দূরে থাকতে নিয়মিত চা পান করুন।

চা-এ অতিরিক্ত দুধ-চিনি মেশানো থেকে বিরত থাকুন, কারণ অতিরিক্ত দুধ-চিনি মিশিয়ে চা পান করলে তা উপকারের বদলে ক্ষতি করবে বেশি।


অন্যান্য সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: