রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ১১:২৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিবগঞ্জে ৩০ শতাংশ সিলেবাসে পরীক্ষার দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন মোংলা বন্দরে তিন নম্বর সংকেত বহাল ‘নিষিদ্ধ’ সিনেমা দেখায় এক শিক্ষার্থী ১৪ বছরের কারাদণ্ড ওমিক্রন মোকাবিলায় দেশের সীমান্ত বন্ধের কোনো পরিকল্পনা নেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা রোগীর মৃত্যুর করনে হাসপাতাল পরিচালকের ৩বছর কারাদণ্ড ডামুড্যায় জাতীয় বীর আব্দুর রাজ্জাক ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত ‘ওমিক্রন’ বাংলাদেশের দরজায় কড়া নাড়ছে আহসানগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নির্বাচনী বর্ধিত সভা টঙ্গীতে গ্রাহক ও ঠিকাদার ঐক্য পরিষদের মানববন্ধন ফেনীর ১০জন শ্রেষ্ঠ স্বেচ্ছাসেবক পুরস্কৃত হলেন প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানকে হত্যাচেষ্টা ব্যর্থ দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ভোগান্তি যেন নিত্যদিনের সঙ্গী চোরের নিকট থেকে উদ্ধার হওয়া গরু লালন-পালন করছে পুলিশ বাগেরহাটে ক্লিনিক মালিকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ : উপকূলে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি অব্যাহত দেশে করোনায় মৃতেৃর সংখ্যা ২৮ হাজার ছাড়াল তিন সন্তান জন্ম দিয়ে বিপদে পড়া ববিতার পাশে ইউএনও আইন মন্ত্রীর প্রয়াত পিতা-মাতার স্মরণে দোয়া মাহফিল ডিমলায় প্রতিবন্ধী দিবসে আর্থিক সহায়তা প্রদান ডেঙ্গুতে আরও ৬৮ জন হাসপাতালে ভর্তি

গোপালগঞ্জে মহিলা আলিয়া মাদ্রাসা ভবন নির্মান কাজ বন্ধ

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশের সময় : রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ১১:২৯ অপরাহ্ন
গোপালগঞ্জে মহিলা আলিয়া মাদ্রাসা ভবন নির্মান কাজ বন্ধ

জেলা শহরের মৌলভীপাড়া এলাকায় মহিলা কামিল মাদ্রাসা (আলীয়াঢ়ভবন নির্মান কাজ বন্ধ রয়েছে দীর্ঘদিন ধরে। বন্ধ থাকার কারন জানতে চাইলে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান মেসার্স মা এন্টারপ্রাইজের পক্ষে মো: আপেল নামে একজন অর্থ সংকটজনিত কারনে কাজ বন্ধ থাকার কথা স্বীকার করেছেন।
ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম বলেন,‘নির্মীয়মান ভবনটির পিলারগুলি কেবলমাত্র দৃশ্যমান হয়েছে। তাতেই দুই বার বিল তুলেছেন ঠিকাদার। বিল তোলার পর কাজ বন্ধ রেখেছেন। ঠিকাদার গোপালগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য আল হেলালের পরিবারের সদস্য। সেকারনে প্রভাব বিস্তার করে চলে। আমরা চাই দ্রুতগতিতে কাজ সম্পন্ন করুক ঠিকাদার। একই সাথে প্রকল্পের আওতায় অন্যান্য মাদ্রাসা ভবনগুলির নির্মান কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে বলে খোঁজ নিয়ে জেনেছি। ঠিকাদাররা কাজ শেষ হলে বিল পায়। কিন্তু এক্ষেত্রে কাজের শুরুতেই বিল চাইছে ঠিকাদার’।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে গোপালগঞ্জ শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী সদুত্তর দেননি।


অন্যান্য সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: