শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ০১:৩১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
দেশে করোনায় আরও ২০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৫৪৪০ মানিকগঞ্জে নারী হত্যায় স্বামী-স্ত্রী গ্রেপ্তার সুন্দরবনের রুপার খাল থেকে মৃত বাঘ উদ্ধার দিনাজপুরের হিলিতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৬.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস শেরপুরের হরিজনরা পাচ্ছেন ছয়তলা ভবন অসহায় শিক্ষার্থীদের পাশে  হিরন ও হমিদা এডুকেশনাল ট্রাস্ট দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কুড়িগ্রামে ৬ দশমিক ১ ডিগ্রী সেলসিয়াস উজিরপুরে ব্রিজ ভেঙে ভেকুসহ লরি খালে ফেনী সমিতি ঢাকার উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ পাকিস্তানে সন্ত্রাসীদের হামলায় ১০ সেনা নিহত ফেব্রুয়ারিতেই ইউক্রেনে হামলা করতে পারে রাশিয়া : বাইডেন হন্ডুরাসের প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট জিওমারা কাস্ত্রো ঘরে ফিরে মুশফিকদের কাছে হারল চট্টগ্রাম ভোলায় বেগুন চাষে কৃষকদের মাঝে সাড়া ব্রাজিলকে রুখে দিল ইকুয়েডর এবারের আইপিএলের সব খেলা হবে এক শহরে! মেসি বিহীন জিতলো আর্জেন্টিনা রাজধানীতে ইয়াবা-হেরোইনসহ ৫৯ জন গ্রেফতার ইউক্রেন সংকট নিয়ে নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক ডেকেছে যুক্তরাষ্ট্র ভারতী এয়ারটেলে শত কোটি ডলার বিনিয়োগ গুগলের

কালিয়াকৈর কুড়িয়ে পাওয়া প্রতিবন্ধী শিশুটি উদ্ধারে ঠেলাঠেলি

কালিয়াকৈর প্রতিনিধি:
প্রকাশের সময় : শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ০১:৩১ পূর্বাহ্ন

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে কুড়িয়ে পাওয়া মানসিক প্রতিবন্ধী এক শিশুকে উদ্ধার করা নিয়ে দিন-রাত ভর চলে ঠেলাঠেলি। অবশেষে ২৮ ঘন্টা পর ওই শিশুটিকে উদ্ধার করে থানা পুলিশ। আসলে এ শিশুটি উদ্ধারের দায় কোন দপ্তরের এমন প্রশ্ন সবার কাছে। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় লোকজন। তবে ওই শিশুটির পরিচয় এখনো জানা যায়নি।

এলাকাবাসী, উপজেলা সমাজসেবা দপ্তর ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত শনিবার সকাল ১০টার দিকে কালিয়াকৈর উপজেলার মিনারবহ এলাকার কাঞ্চনপুর চেয়ারম্যানবাড়ি বাজারে-রশিদপুর আঞ্চলিক সড়কের পাশে মানসিক প্রতিবন্ধী এক শিশুকে বসে থাকতে দেখেন স্থানীয় লোকজন। পরে ওই এলাকার হুমায়ুন কবীর প্রতিবন্ধী শিশুকে উদ্ধার করে তার বাড়িতে নিয়ে যায়। কিন্তু ওই শিশুটি নিজের নাম ঠিকানা ঠিক মতো বলতে না পারায় বিপাকে পড়েন হুমায়ুন কবীর ও তার পরিবারের লোকজন। পরে তারা বাধ্য হয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য ও সাংবাদিকদের জানায়। ওই কুড়িয়ে পাওয়া শিশুর বিষয়ে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তাকে জানালে তিনি উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তাকে জানাতে বলেন। পরে ওই শিশুর বিষয়টি ওইদিন রাত পৌণে ৮টার দিকে উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মিজানুর রহমানকে জানানো হয়। ওই কর্মকর্তা তিনি তার নিজের দায় এড়িয়ে গিয়ে থানায় জানাতে বলেন। থানায় জিডি হলে আমরা ব্যবস্থা নিবো বলেও জানান তিনি। কিন্তু ওই কর্মকর্তা প্রতিবন্ধী শিশুটিকে উদ্ধারে কোন প্রদক্ষেপ নেননি। পরের দিন রোববার দুপুরে কালিয়াকৈর থানার ওসি মনোয়ার হোসেন চৌধুরীর নির্দেশে স্থানীয় হুমায়ুন কবীর তাকে স্থানীয় চাপাইর ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে যায়। সেখান থেকে ওই শিশুকে বেলা ২টার দিকে কালিয়াকৈর থানায় পাঠানো হয়। এ ঘটনায় থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী (জিডি) দায়ের করা হয়েছে। কিন্তু তার পরিচয় এখনোও পাওয়া যায়নি। তার বয়স আনুমানিক ১১ বছর। এদিকে এত ঠেলাঠেলির শেষে ২৮ ঘন্টার পর শিশুটি উদ্ধারের ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় লোকজন। আসলে এ শিশুটি উদ্ধারের দায় কোন দপ্তরের এমন প্রশ্নও স্থানীয় সবার।

কালিয়াকৈর উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা মিজানুর রহমান জানান,  এ শিশুকে উদ্ধারের দায়িত্ব ইউএনও অফিস, স্থানীয় থানা ও আমাদের তিন দপ্তরেরই। কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনোয়ার হোসেন চৌধুরী জানান, এমন ঘটনা ঘটলে সমাজসেবা দপ্তর সব সময় তাদের দায় এড়িয়ে যায়। ওই প্রতিবন্ধী শিশুকে উদ্ধার করে থানায় একটি জিডি করা হয়েছে। তবে ওই শিশুটি উদ্ধার বা এমন ঘটনায় দায় কোন দপ্তরের এমন প্রশ্ন, ওসির নিজেরও। কালিয়াকৈর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা তাজওয়ার আকরাম সাকাপি ইবনে সাজ্জাদ জানান, ওই শিশুটিকে উদ্ধারের পর তাকে ময়মনসিংহে সরকারি আশ্রয়ন কেন্দ্রে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।


অন্যান্য সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: