রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:১৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সরকার খালেদা জিয়াকে ভয় পায় : মির্জা ফখরুল দেশে করোনায় শনাক্ত নামল ছয় শতাংশের নিচে সামঞ্জস্যপূর্ণ সাজার চর্চা নিশ্চিতে নীতিমালা প্রণয়নে হাইকোর্টের রুল নিজ চার সন্তানকে বিষ খাইয়ে, আগুন পুড়ে আত্মহত্যাচেষ্টা মায়ের! মামলায় ‘পলাতক’, অথচ স্কুলের বেতন তুলছেন শিক্ষক রাণীশংকৈলে বীরঙ্গনা ঐক্য সংঘের সমাবেশ ইঁদুর মারার বিষকে চকলেট ভেবে খেয়ে শিশুর প্রাণ গেল বিয়ে বাড়িতে ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষে আহত ২০ কালকিনিতে প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে বেঁড়া দিয়ে চাষাবাদ লোকালয়ে আসা হরিণ বনে ফেরত বাংলাদেশ চাইলে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় সহযোগিতা করবে জাতিসংঘ আগামীকাল দেবীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন, ঝুঁকিতে ৬ কেন্দ্র আত্রাইয়ে আশ্রয়ন প্রকল্পের নির্মিত হলো দৃষ্টিনন্দন শিশুপার্ক ভোলায় গ্রাহকদের হাজার কোটি টাকা নিয়ে উধাও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের স্বপ্ন দেখে লাভ নেই: তথ্য প্রতিমন্ত্রী অবশেষে তামিম মাঠে ফিরে এলেন ইভ্যালি নিয়ে যা বললেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ম্যাচ জিতলেই আড়াই লাখ টাকা পুরস্কার ৫৯টি আইপিটিভি বন্ধ করে দিলো বিটিআরসি ‘বিদেশি ফুটবলার’ আনায় জেমির ওপর ক্ষুব্ধ সালাউদ্দিন

কালভার্টের উপর বাঁশের চাটাই একমাত্র ভরসা

হিলি (দিনাজপুর) প্রতিনিধি
প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:১৫ অপরাহ্ন
কালভার্টের উপর বাঁশের চাটাই একমাত্র ভরসা

দিনাজপুরের হাকিমপুর (হিলি) উপজেলার বোয়ালদাড় ইউনিয়নের খাটাউচনা বাজার থেকে খাটেচড়া গ্রামে যাওয়ার প্রধান সড়কের কালভার্টির বেহাল অবস্থা। ঝুঁকিপূর্ণ কালভার্টের উপর দিয়ে ওই গ্রামের শত শত মানুষ এর চলাচল। কালভার্টটি ভেঙে যাওয়ায় বাঁশের চাটাই দিয়ে কোন রকমে মানুষজন মোটরসাইকেল ও ভ্যান-রিকশা চলাচল করছে। কালভার্টি যেন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। যেকোনো সময়ে বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটতে পারে। সব সময় আতংক নিয়ে চলাচল করছে খাটেচড়া গ্রামের মানুষ। ওই গ্রামের মানুষের চলাচলের একমাত্র সড়ক হওয়ায় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে সবাইকে। তাই দ্রুত কালভার্টি সংস্কারের দাবি করছেন গ্রামবাসী। সেই সাথে ১ কিঃ মিঃ কাঁচা রাস্তাটি পাকা করণের দাবি জানান তারা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, উপজেলা সদর থেকে প্রায় ১২ কিঃ মিঃ পূর্ব উত্তর কোনে খাটাউচনা বাজার থেকে জাংগই বাজারে যাওয়ার পাকা রাস্তার উত্তর পার্শে খাটেচড়া গ্রামটি অবস্থিত। ওই গ্রামে ২০০ থেকে ২৫০ পরিবারের লোকজন বসবাস করে। খাটেচড়া গ্রাম থেকে উপজেলা সদরসহ বিভিন্ন জায়গায় যাওয়ার প্রধান সড়ক এটি। দীর্ঘ দিনের পুরোনো কালভার্টটির বর্তমানে ঢালাই নেই, আছে শুধু রড। গ্রামবাসী ভাঙা কালভার্টের উপর বাঁশের চাটাই দিয়ে ও ব্যবসায়ীসহ নানা শ্রেণি-পেশার লোক যাতায়াত করে। ভাঙা কালভার্টের উপর দিয়ে যাতায়াত করতে প্রতিনিয়তই তারা বিপদে পড়ছেন। বেশি ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন, ভ্যান- রিকশা চালক, রোগী ও বয়স্ক লোক।

স্থানীয় ফরিদুল ইসলাম ও আমজাদ হোসেন জানান, খাটেচড়া গ্রামের মানুষ জনদের যাতায়াতের এটিই একমাত্র রাস্তা। গ্রাম থেকে শহরে আসার বিকল্প কোন সড়ক না থাকায় প্রতিদিন মোটর সাইকেল, বাইসাইকেল, ভ্যান- রিকশা নিয়ে চলাচলকারীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। রাতে বেলায় এই কালভার্টের উপর দিয়ে চলাচল করা অসম্ভব হয়ে উঠেছে। বিশেষ করে বর্ষার দিনে দুর্ভোগ আরও বেড়ে যায়। দীর্ঘ দিন থেকে কালভার্টের এমন অবস্থার কারণে আমাদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। তাই কালভার্টি দ্রুত সংস্কার সহ আমাদের কাঁচা রাস্তাটি পাকা করণের জোড় দাবি জানাচ্ছি।

বোয়ালদাড় ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী ছদরুল ইসলাম জানান, প্রায় দশ বছর আগে কালভার্টটি নির্মাণ করা হয়েছে। প্রায় এক বছর আগে থেকে এর ঢালাই ঝরে পড়া শুরু হয়। পরবর্তীতে গ্রামবাসী ভাঙা কালভার্টের উপর বাঁশের চাটাই দিয়ে কোন রকমে চলাচল করছে। ফলে দিন দিন ঝুঁকি বাড়ছেই। এতে গ্রামবাসীর দুর্ভোগ বাড়ছে। তাই কালভার্টটি দ্রুত সংস্কারের জন্য ইতিমধ্যে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কে অবগত করা হয়েছে। তিনি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব নতুন কালভার্ট তৈরি করে দিবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন।

বোয়ালদাড় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মেফতাউল জান্নাত বলেন, আমি খাটেচড়া গ্রামের প্রধান সড়কের কালভার্টের বিষয়টি জানি। বর্তমানে কোন বরাদ্দ না থাকায় মেরামতের জন্য কাজ করতে পারছি না। আগামীতে বরাদ্দ আসলে নতুন কালভার্ট নির্মাণ করা হবে।

এবিষয়ে হাকিমপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হারুন-উর রশিদ হারুন জানান, খাটেচড়া গ্রামের প্রধান সড়কের কালভার্টের বিষয়টি আমাকে অবগত করা হয়েছে। সত্যিই খাটেচড়া গ্রামের মানুষ জনের চলাচলের প্রধান সড়ক এটি। আসলেই কালভার্টি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।আমি বিষয়টি জানার পরে ইতোমধ্যে উপজেলা প্রকৌশলীকে এডিপির অর্থায়ন থেকে নতুন করে কালভার্টটি নির্মাণের জন্য বলা হয়েছে। দ্রুতই কাজ শুরু হবে বলে আশা করছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্যান্য সংবাদ