শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১১:৩৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ফরিদপুরের সালথায় ইমাম বাড়িতে ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা একনজরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ১৬ দলের খেলোয়াড় তালিকা অবশেষে নগরীতে নামলো স্বস্তির বৃষ্টি সৌদি জোটের হামলা: ইয়েমেনে নিহত ১৬০ ডেঙ্গুতে চলতি বছর আক্রান্ত ২১ হাজার ২শ ছাড়াল প্রতিদিন টিকা পাবে ৪০ হাজার শিশু ডেঙ্গু আক্রান্ত ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মার্কিন যুদ্ধজাহাজকে রাশিয়ার ধাওয়া টেকসই স্যানিটেশন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সমন্বিত প্রয়াসের আহ্বান ‘সরকার সবার জন্য নিরাপদ স্যানিটেশন নিশ্চিত করতে বদ্ধপরিকর’ ওমরাহ যাত্রীদের জন্য নতুন নির্দেশনা সাম্প্রদায়িক সংঘাতের চেষ্টায় আ.লীগের এজেন্টরা জড়িত: ফখরুল দ্রব্যমূল্য থেকে মানুষের চোখ সরাতেই কুমিল্লার ঘটনা: মান্না এই সরকারের অধীনে আর কোনো নির্বাচন নয়: সাকি প্রচণ্ড তাপে পুড়ছে দেশের ১৮ অঞ্চল সকালে দলের সঙ্গে যোগ দিলেন সাকিব রুহিয়া থানা বিএনপির মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত গোবিন্দগঞ্জে শহীদ মিনারের ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন গাইবান্ধায় বিশ্ব খাদ্য দিবস পালিত অস্ত্রসহ একজনকে আটক করেছে র‌্যাব-৫

কারিশমা জাতের তরমুজ চাষ করে সফলতা পেয়েছেন কৃষক বাচ্চু মোল্লা

নওগাঁ প্রতিনিধি
প্রকাশের সময় : শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১১:৩৩ অপরাহ্ন
কারিশমা জাতের তরমুজ চাষ করে সফলতা পেয়েছেন কৃষক বাচ্চু মোল্লা

নওগাঁ’র বদলগাছি উপজেলায় অসময়ের তরমুজ চাষ করে আর্থিকভাবে লাভবান হয়েছেন একজন কৃষক। কৃষি বিভাগের সহযোগিতায় একটি প্রদর্শনী ক্ষেতে বদলগাছি উপজেলার ভোলার পালশা গ্রামের শামসুল আলম বাচ্চু মোলালা নামের ঐ কৃষক কারিশমা নামের হাইব্রীড জাতের তরমুজ চাষ করে এই সফলতা লাভ করেছেন। তরমুজ চাষে তাঁর এই সফলতা দেখে তরমুজ চাষে অগ্রহী হয়ে উঠেছেন পার্শ্ববর্তী এলাকার অনেক কৃষক।
আধুনিক কৃষি প্রযুক্তি সম্প্রসারনের মাধ্যমে রাজশহী বিভাগের কৃষি উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় জেলার বদলগাছি উপজেলার কোলা ইউনিয়নে ভোলার পালশা মৌজায় উক্ত কৃষক শামসুল আলম বাচ্চু মোল্লা ১০ কাঠা জমিতে কারিশমা জাতের এই তরমুজ চাষ করেছেন। এই তরমুজ চাষ করতে তাঁর মোট খরচ হয়েছে ৫ হাজার টাকা। তরমুজের চারা রোপনের দিন থেকে মোট ৮০ দিনের সময় সীমার মধ্যেই ক্ষেত থেকে তরমুজ উঠতে শুরু করেছে। এখন পর্যন্ত ৫শ কেজি তরমুজ বিক্রি হয়েছে। আরও ৫শ কেজি তরমুজ ক্ষেতে রয়েছে। প্রতি কেজি তরমুজ ৫০ টাকা হিসেবে এই ক্ষেতে থেকে মোট ৫০ হাজার টাকা আয় হবে বলে নিশ্চয়তা প্রদান করেছেন ঐ কৃষক। মাত্র ৮০ দিনেই খরচ বাদ দিয়ে ঐ ১০ কাঠা জমি থেকে তিনি নীট ৪৫ হাজার টাকা লাভ করবেন এই কৃষক।
এই তরমুজ সুস্বাদু এবং গুনগত মান ভালো হওয়ায় লাভজনক। তাই বাচ্চু মোল্লার এই তরমুজ চাষ দেখে এলাকার অনেকেই কারিশমা জাতের হাইব্রীড জাতের অসময়ের এই তরমুজ চাষে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।
প্রয়োজনীয় বীজ এবং সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করেছে স্থানীয় কৃষি বিভাগ। কৃষি বিভাগ প্রদর্শনী ক্ষেত হিসেবে এই জমি নির্ধারন করে বাচ্চু মোল্লাকে সর্বাত্মক সহযেঙাগিতা প্রদান করেছে। বদলগাছি উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোঃ হাসান আলী জানিয়েছেন অন্যরা এই তরমুজ চাষ করলে কৃষি বিভাগ সার্বক্ষনিক তদারকী এবং পরামর্শ প্রদান করবে কৃষকদের।


অন্যান্য সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: