রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:১৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ভবন ও রাস্তা নির্মাণে ভালো ইট তৈরি ও সরবরাহের নির্দেশ: তাজুল ইসলাম ফখরুলসহ ৫১ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি ২১ নভেম্বর দেশে আরও ২৪১ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি নির্দিষ্ট গোষ্ঠী আমাদের হুমকি দিয়েছিল: ডেভিড হোয়াইট তৃণমূলের নেতাকর্মীরা আওয়ামী লীগের প্রাণ : তথ্যমন্ত্রী আরও তিন শাখা উদ্বোধন হলো প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকের খাদে পড়ল বাস ৩০ যাত্রী নিয়ে সরকার খালেদা জিয়াকে ভয় পায় : মির্জা ফখরুল দেশে করোনায় শনাক্ত নামল ছয় শতাংশের নিচে সামঞ্জস্যপূর্ণ সাজার চর্চা নিশ্চিতে নীতিমালা প্রণয়নে হাইকোর্টের রুল নিজ চার সন্তানকে বিষ খাইয়ে, আগুন পুড়ে আত্মহত্যাচেষ্টা মায়ের! মামলায় ‘পলাতক’, অথচ স্কুলের বেতন তুলছেন শিক্ষক রাণীশংকৈলে বীরঙ্গনা ঐক্য সংঘের সমাবেশ ইঁদুর মারার বিষকে চকলেট ভেবে খেয়ে শিশুর প্রাণ গেল বিয়ে বাড়িতে ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষে আহত ২০ কালকিনিতে প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে বেঁড়া দিয়ে চাষাবাদ লোকালয়ে আসা হরিণ বনে ফেরত বাংলাদেশ চাইলে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় সহযোগিতা করবে জাতিসংঘ আগামীকাল দেবীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন, ঝুঁকিতে ৬ কেন্দ্র আত্রাইয়ে আশ্রয়ন প্রকল্পের নির্মিত হলো দৃষ্টিনন্দন শিশুপার্ক

করোনার মধ্যেই হিমশিম খাচ্ছে পুরো বিশ্ব, আবার ধরাচ্ছে নতুন রোগ

রিপোর্টারের নাম
প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:১৮ অপরাহ্ন
করোনার মধ্যেই হিমশিম খাচ্ছে পুরো বিশ্বর, আবার ধরাচ্ছে নতুন রোগ
করোনার মধ্যেই হিমশিম খাচ্ছে পুরো বিশ্বর, আবার ধরাচ্ছে নতুন রোগ

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে হিমশিম খাচ্ছে পুরো বিশ্ব। ভাইরাসটির নতুন নতুন ধরনের কাছে বিশ্বের ক্ষমতাধর রাষ্ট্রগুলোও ধরাশায়ী। এর মধ্যেই ভয় ধরাচ্ছে নতুন এক রোগ।

কুকুর ও ইঁদুরের প্রস্রাব থেকে ছড়িয়ে পড়ছে লেপটোস্পাইরোসিস নামের রোগটি; যা নিয়ে বাড়ছে উদ্বেগ। ইতোমধ্যে পশ্চিমবঙ্গের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে বিষয়টি নিয়ে সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, রাস্তায় জমে থাকা পানিতে মিশে থাকে কুকুর কিংবা ইঁদুরের প্রস্রাব। তা মানুষের শরীরে প্রবেশ করে বাঁধাচ্ছে মারত্মক এই অসুখ।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিনের প্রতিবেদনে জানা গেছে, পশ্চিমবঙ্গের প্রতিটি জেলার প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা, প্রতিটি মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে সতর্কবার্তা। সময় থাকতেই সাবধানতা অবলম্বনের পরামর্শ দিচ্ছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

জানা গেছে, এই রোগে মৃত্যুহার যথেষ্ট। অসুখ হওয়ার আগেই তাই সর্তকতা নিতে চায় রাজ্যের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ডায়রেক্টর অফ হেলথ সার্ভিস এবং ডায়রেক্টর অফ মেডিক্যাল এডুকেশন যৌথ বিবৃতিতে বলেছে, এই রোগ চারপেয়েদেরই হয়। কুকুর–ইঁদুর কিংবা গবাদি পশুর শরীরে এক ধরনের স্পাইরাল ব্যাকটেরিয়ার দেখা মেলে। তার নাম লেপটোস্পাইরা। এর থেকেই ছড়ায় অসুখ। আক্রান্ত পশুর প্রস্রাবে থিকথিক করে সেই ব্যাকটেরিয়া। যা শরীরে লাগলেই বিপদ। পশুর প্রস্রাব ত্বকের সংস্পর্শে এলেই অসুখ ছড়ায়।

বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, বর্ষায় এবং বর্ষা পরবর্তী স্যাঁতস্যাঁতে আবহাওয়া এই রোগ ছড়ানোর পক্ষে অনুকূল। শরীরে ব্যাকটেরিয়া প্রবেশের পর উপসর্গ দেখা দিতে ৫ থেকে ১৪ দিন সময় লাগে। কোনো কোনো সময় নোংরা প্রস্রাব মাড়িয়ে আসার এক মাস পরেও অসুখ দেখা দিতে পারে। চোখ লাল হওয়া, ঘাড় শক্ত হয়ে যাওয়া, কোনো কারণ ছাড়াই আচমকা জন্ডিস, তলপেটে ব্যথা এমন কোনো উপসর্গ দেখলেই চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

যারা নালা পরিষ্কার করেন তাদেরই সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা বেশি। তাই যাদের নোংরায় কাজ করতে হয় এমন পেশার লোকদের গ্লাভস এবং পায়ে জুতা পরে কাজ কর


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্যান্য সংবাদ