শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৬:২৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
অসুস্থ গাফফার চৌধুরীকে ফোন করে খোঁজ-খবর নিলেন রাষ্ট্রপতি স্কটল্যান্ড হারলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ কক্ষপথে স্যাটেলাইট স্থাপনে ব্যর্থ হয়েছে দ. কোরিয়া স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী বন্ধ হচ্ছে না বৈধ-অবৈধ মোবাইল ফোন মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিসহ ২১৩ অভিবাসী আটক হিন্দুদের ওপর হামলা দেশের চেতনার বেদীমূলে হামলা : তথ্যমন্ত্রী জানুয়ারিতে বাড়তে পারে ক্লাসের সংখ্যা: শিক্ষামন্ত্রী ব্যাট-বলের ভারসাম্যে খুশী মাহমুদুল্লাহ ধামইরহাটে উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনে পুনরায় দেলদার হোসেন সভাপতি ও সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বিশাল জয়ে বিশ্বকাপের মূল পর্বে টাইগাররা ‘বিএনপি নেতারা রাজনীতি নয়, অফিসিয়াল দায়িত্ব পালন করছেন’ গোয়ালন্দ উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি গঠন মালিঙ্গাকে ছাড়িয়ে আফ্রিদিকে ধরে ফেললেন সাকিব রাডার কিনতে ফ্রান্সের সঙ্গে চুক্তি সই করোনায় ২৪ ঘণ্টায় বেড়েছে মৃত্যু, কমেছে শনাক্ত ঠাকুরগাঁওয়ে বাল্যবিবাহের অপরাধে ইউপি চেয়ারম্যান ও কাজি সহ আটক ০৯ কখনও বলিনি বিশ্বকাপ জিতে বিয়ে করব: রশিদ খান নারী ও শিশু উন্নয়ন বিষয়ক সাংবাদিক প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপন ধামইরহাটে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ মন্ডলকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন

আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের ব্যয় ২.২৬ ট্রিলিয়ন ডলার!

রিপোর্টারের নাম
প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৬:২৬ পূর্বাহ্ন
আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের ব্যয় ২.২৬ ট্রিলিয়ন ডলার!

গত দুই দশকে আফগানিস্তানে তালেবান জঙ্গিদের সাথে যুদ্ধ করতে গিয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে ২.২৬ ট্রিলিয়ন ডলার গুনতে হয়েছে। এর মধ্যে শুধু যুদ্ধের পেছনে ব্যয় হয়েছে ৮০০ বিলিয়ন ডলার। ব্রাউন বিশ্ববিদ্যালয় এই তথ্য জানিয়েছে।

মার্কিন সাময়িকী ফোর্বস বলছে, আফগানিস্তানে তালেবান হটাতে যুক্তরাষ্ট্রের খরচ জেফ বেজোস, ইলন মাস্ক, বিল গেটসসহ বিশ্বের শীর্ষ ৩০ ধনকুবের মোট সম্পত্তির পরিমাণকে ছাড়িয়ে গেছে।

২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে সন্ত্রাসী হামলার পর আফগানিস্তানের তালেবানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে নামে যুক্তরাষ্ট্র ও মিত্র বাহিনী। সেই থেকে আফগানিস্তানে খরচ শুরু হয় মার্কিন সরকারে।

ফোর্বস বলছে, খরচের অঙ্কটা এতই বিশাল আফগান নাগরিকদের মাথাপিছু ব্যয় হয়েছে ৫০ হাজার ডলার। আফগানিস্তানে প্রায় চার কোটি মানুষের বসবাস। আর সেখানে যুক্তরাষ্ট্রের দৈনিক খরচ হয়েছে ৩০ কোটি ডলারের বেশি।

ব্রাউন বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসেব অনুযায়ী, আফগান সেনাদের প্রশিক্ষণ দিতে খরচ হয়েছে ৮৫ বিলিয়ন ডলার। মার্কিনদের করের অর্থে দেওয়া হয়েছে আফগান সৈন্যদের বেতন। আফগান সেনাদের বেতন দিতে বছরে ব্যয় হয়েছে ৭৫০ মিলিয়ন ডলার।

তবে, দুই দশকের সংঘাতে খরচের এই হিসাব প্রাণহানির তুলনায় একেবারেই তুচ্ছ। এ পর্যন্ত আফগান যুদ্ধে আড়াই হাজার মার্কিন সেনার প্রান গেছে। এছাড়া প্রায় চার হাজার বেসামরিক মার্কিন নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে। এদিকে, আফগান নাগরিকদের ক্ষেত্রে এই সংখ্যা চার অঙ্ক ছাড়িয়েছে। দুই দশকের যুদ্ধে ৬৯ হাজার আফগান সেনা এবং ৪৭ হাজার বেসামরিক আফগান নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে। অন্যদিকে, তালেবান জঙ্গিদের ৫১ হাজার সদস্য নিহত হয়েছেন।

এ তো গেল নিহতের হিসাব। আফগান যুদ্ধে আহত ২০ হাজার মার্কিন সেনার সাহায্য-সহায়তা করতেই খরচ হয়েছে ৩০০ বিলিয়ন ডলার। এ সহায়তা অব্যাহত রাখতে হলে আগামী দিনগুলোতে আরও আধা ট্রিলিয়ন ডলার খরচ করতে হবে যুক্তরাষ্ট্রকে।

এদিকে, আফগানিস্তান যুদ্ধ শেষ করলেও এর খরচের বোঝাটা আরো বহুদিন বয়ে যেতে হবে বলে মনে করছেন ব্রাউন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকেরা। তাঁরা বলছেন, ২০ বছর ধরে এই যুদ্ধ চালানো হয়েছে ধার করা অর্থে। এর ওপরে আসা ৫০০ বিলিয়ন ডলার সুদ এরই মধ্যে পরিশোধ করতে হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রকে। ২০৫০ সালের মধ্যে সুদের পরিমাণ দাঁড়াবে সাড়ে ৬ ট্রিলিয়ন ডলার। এর অর্থ, আফগান যুদ্ধের জন্য প্রত্যেক মার্কিন নাগরিকের ঘাড়ে ২০ হাজার ডলার ঋণের বোঝা পড়তে যাচ্ছে।

পহেলা মে আমেরিকান সৈন্য প্রত্যাহার শুরুর পর থেকে তালেবান জঙ্গিদের হামলা বাড়তে থাকে। গত রবিবার কাবুল দখল করে তালেবানরা।


অন্যান্য সংবাদ
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: